বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2022 > IPL 2023: লর্ডে ঘুচল মোহ, ১০.৭৫ কোটির অলরাউন্ডারকে ছাড়ছে DC, বাতিল আরও চার

IPL 2023: লর্ডে ঘুচল মোহ, ১০.৭৫ কোটির অলরাউন্ডারকে ছাড়ছে DC, বাতিল আরও চার

শার্দুল ঠাকুরকে ছেড়ে দিচ্ছে দিল্লি ক্যাপিটালস।

ভারতের তারকা অলরাউন্ডারকে দিল্লি ক্যাপিটালস ২০২২ মরশুমের জন্য ১০.৭৫ কোটিতে কিনেছিল। তবে দাম অনুযায়ী পারফরম্যান্স করতে পারেননি তিনি। ১৪ ম্যাচে ১৫টি উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। তবে প্রতি ওভারে ১০-এর কাছাকাছি রান দিয়েছিলেন। আর ব্যাট হাতে তিনি ১০.৮১ গড়ে এবং ১৩৭.৯৩ স্ট্রাইক রেটে ১২০ রান করেছিলেন।

দিল্লি ক্যাপিটালস ২০২৩ আইপিএলের জন্য শার্দুল ঠাকুর, কেএস ভরত এবং নিউজিল্যান্ডের টিম সেফার্ট সহ পাঁচজন খেলোয়াড়কে ছেড়ে দিতে প্রস্তুত। কোন ফ্র্যাঞ্চাইজি টিম, কোন কোন প্লেয়ার ছেড়ে দিচ্ছে, তার তালিকা ১৫ নভেম্বরের মধ্যে দিতে হবে। সেই তালিকাতে শার্দুল, ভরত এবং সেফার্টের সঙ্গে মনদীপ সিং এবং অন্ধ্রপ্রদেশের ওপেনার অশ্বিন হেব্বারকেও ছেড়ে দেবে বলে জানা গিয়েছে।

শার্দুল ঠাকুর, যাঁকে দিল্লি ক্যাপিটালস ২০২২ মরশুমের জন্য ১০.৭৫ কোটিতে কিনেছিল, তাঁকে এ বার আর দলে রাখতে রাজি নয়। কারণ যে অর্থ ব্যায় করে তাঁকে নেওয়া হয়েছিল, সেই অনুযায়ী পারফরম্যান্স করতে পারেননি শার্দুল। ১৪ ম্যাচে ১৫টি উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। তবে প্রতি ওভারে ১০-এর কাছাকাছি রান দিয়েছিলেন।। আর ব্যাট হাতে তিনি ১০.৮১ গড়ে এবং ১৩৭.৯৩ স্ট্রাইক রেটে ১২০ রান করেছিলেন।

আরও পড়ুন: বিদেশি লিগে ভারতীয়দের খেলার প্রশ্নই নেই, পাঁচ বছরে IPL-এ হবে ৯৪টি ম্যাচ

দিল্লি ক্যাপিটালস তাঁকে অন্য দলের সঙ্গে লেনদেন করতে চেয়েছিল। কিন্তু সেই চুক্তিটি করা যায়নি। এর পরেই তারা বিবেচনা করে যে, বেশি দামের শার্দুলকে ডিসেম্বরে মিনি নিলামের আগে তারা মুক্তি দিয়ে দেবে। তাঁকে আর ২০২৩ আইপিএলে রাখবে না।

একটি আইপিএল সূত্র পিটিআইকে জানিয়েছে, ‘শার্দুল একজন প্রিমিয়াম অলরাউন্ডার কিন্তু তাঁর মূল্য অনেকটাই বেশি ছিল, যেটা সমস্যা হচ্ছিল। অন্য যাঁদের ছাড়তে চলেছে দিল্লি, তাঁরা হলেন, হেব্বার, মনদীপ, সেফার্ট এবং ভরত।’

নিউজিল্যান্ডের ব্যাটার সেফার্টের নিলাম পুলে ফিরে যাওয়ার বিকল্প থাকবে। ২০২২ আইপিএলে দিল্লির হয়ে মাত্র দু'টি ম্যাচ খেলে ২৪ রান করেছিলেন সেফার্ট।

আরও পড়ুন: জাতীয় দলে বাতিল মায়াঙ্কের জায়গায় T20I-তে ব্রাত্য বর্ষীয়ানকে ক্যাপ্টেন করল PBKS

অধিনায়ক ঋষভ পন্ত যেহেতু উইকেটকিপার হিসেবে রয়েছেন, তাই কেএস ভরতকে শুধুমাত্র কয়েকটি ম্যাচে ব্যাটার হিসেবেই চেষ্টা করা হয়েছিল। তবে তিনি ব্যাট হাতে প্রভাব ফেলতে পারেননি।

পঞ্জাবের অভিজ্ঞ মনদীপ সিং দলের হয়ে তিনটি খেলায় মোট ১৮ রান করেছেন। ২০২১ সালের আগের মরশুমেও তিনি খুব বেশি খেলার সুযোগ পাননি। অন্ধ্রের ব্যাটার অশ্বিন হেব্বার ২০২২ সংস্করণে একটি খেলাতেও সুযোগ পাননি এবং তাঁকে ছেড়ে দেওয়াটা অবাক হওয়ার মতো কিছু নয়।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক যশ ধুল, যিনি গত মরশুমে একটি খেলাতেও সুযোগ পাননি, তাঁকে ফ্র্যাঞ্চাইজি অবশ্য ধরে রাখতে চলেছে।

এ দিকে ২০২২ সালে দিল্লি পাঁচ নম্বরে শেষ করে। তবে তার আগের তিনটি মরশুমে তারা প্লে-অফে উঠেছিল। ২০২০ সালে তারা রানার্স আপও হয়েছিল।

বন্ধ করুন