বাংলা নিউজ > ময়দান > সতীর্থকে খারাপ খেলতে বলেছিলেন মনপ্রীত, দাবি প্রাক্তন হকি কোচের, আদালতে যাচ্ছে ভারতীয় দল
মনপ্রীত সিং ও হকি দলের প্রাক্তন কোচ জোয়ার্ড মারিন

সতীর্থকে খারাপ খেলতে বলেছিলেন মনপ্রীত, দাবি প্রাক্তন হকি কোচের, আদালতে যাচ্ছে ভারতীয় দল

  • ঘটনার সূত্রপাত মারিনের প্রকাশিত হতে চলা একটি বইকে ঘিরে। যেখানে বিস্ফোরক দাবি করেছেন ডাচ কোচ মারিন। তাঁর বক্তব্য ভারতীয় পুরুষ হকি দলের তারকা খেলোয়াড় নাকি ২০১৮ কমনওয়েলথ গেমসে এক নবীন তারকাকে ইচ্ছে করে খারাপ পারফরম্যান্সের কথা বলেছিলেন!

শুভব্রত মুখার্জি: ভারতীয় সিনিয়র মহিলা হকি দলের প্রাক্তন কোচ জোয়ার্ড মারিনের বিরুদ্ধে একযোগে কোর্টে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিল ভারতীয় পুরুষ এবং মহিলা হকি দল। ডাচ হকি কোচের পাশাপাশি প্রকাশনা সংস্থা হার্পারকলিন্স ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধেও কোর্টে যাচ্ছে তারা। ঘটনার সূত্রপাত মারিনের প্রকাশিত হতে চলা একটি বইকে ঘিরে। যেখানে বিস্ফোরক দাবি করেছেন ডাচ কোচ মারিন। তাঁর বক্তব্য ভারতীয় পুরুষ হকি দলের তারকা খেলোয়াড় নাকি ২০১৮ কমনওয়েলথ গেমসে এক নবীন তারকাকে ইচ্ছে করে খারাপ পারফরম্যান্সের কথা বলেছিলেন!

প্রসঙ্গত ডাচ কোচ মারিনের কোচিংয়ে ভারতীয় মহিলা হকি দল টোকিয়ো অলিম্পিক্স গেমসে চতুর্থ স্থানে শেষ করেছিল। অল্পের জন্য তারা ব্রোঞ্জ পদক পায়নি। সেই মারিনের একটি বই সদ্য প্রকাশ পেতে চলেছে। ‘উইল পাওয়ার-দ্য ইনসাইড স্টোরি অফ দ্য ইনক্রেডিবল টার্ণঅ্যারাউন্ড ইন ইন্ডিয়ান ওমেন্স হকি’ নামক বইতে এই দাবি করেছেন মারিন। তাঁর বক্তব্য মনপ্রীত নাকি এক নবীন হকি খেলোয়াড়কে এত ভালো খেলতে মানা করেন। না হলে তাঁর বন্ধুরা কিভাবে দলে জায়গা পাবে এমন কথাই নাকি ওই নবীন খেলোয়াড়কে বলেছিলেন মনপ্রীত। ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় সিনিয়র পুরুষ ও মহিলা দলের পক্ষ থেকে যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে। যেখানে দাবি করা হয়েছে মনপ্রীতের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তাদের দাবি পুরো কাজটা করা হয়েছে মারিনের লেখা বইটির প্রচারের উদ্দেশ্যে।

আরও পড়ুন… প্রায় ৪৩ মাস পরে T20I জন্য ডাক! শামির বদলি হিসাবে চণ্ডীগড়ে নামলেন এই ক্রিকেটার

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘আমাদের ব্যক্তিগত সম্পর্ককে ব্যবহার করে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ উনি (মারিন) করাতে আমরা গভীরভাবে মর্মাহত। আমাদের সঙ্গে কোচিংয়ের সময়টাকে সে (মারিন) বানিজ্যিকভাবে কাজে লাগাতে চেয়েছে। আমাদের সম্মানকে ব্যবহার করে উনি ওনার বই বিক্রি করতে চেয়েছেন। এটা সম্পূর্ণ রুপে বিশ্বাসঘাতকতা। এই ঘটনা আমাদের সমস্ত ভারতীয় ক্রীড়াবিদদের নড়িয়ে দিয়েছে।আমরা মি: জোয়ার্ড মারিনের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য প্রস্তুত হচ্ছি। যে পাবলিশার্স বইটি প্রকাশ করছেন তাঁর বিরুদ্ধে ও আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।'

আরও পড়ুন… বাবর-রিজওয়ান নয়, টি টোয়েন্টির আসল ‘কিং’ হলেন কোহলি! এই সত্য মেনে নিলেন মিয়াঁদাদ

দুই দলের যৌথ বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে এমন ঘটনা যদি বাস্তবে ঘটেই থাকত তা হলে মারিনের উচিত ছিল তা প্রথমে হকি ইন্ডিয়া অথবা তার তৎকালীন চাকরিদাতা স্পোর্টস অথরিটি অফ ইন্ডিয়াকে (সাই) জানানো। তবে তিনি সেটা করেননি। তারা আরো স্পষ্ট করেছেন অথরিটির সঙ্গে তারা বিষয়টি নিয়ে খোঁজখবর ও নিয়েছে। জানা গিয়েছে এমন কোন অভিযোগ কোনদিন জমা ও পড়েনি। তাদের মতে মিথ্যা অভিযোগ এনে দলের খেলোয়াড়দের সত্যনিষ্ঠতার প্রতি আঙুল তুলে দিয়েছেন মারিন। তাদের আরও দাবি কারুর ব্যক্তিগত স্বার্থ চরিতার্থ করতে তারা দল এবং খেলোয়াড়দের সত্যনিষ্ঠতাকে কখনো ও এই ভাবে কাজে লাগাতে কোনদিন অনুমতি দেবে না।

উল্লেখ্য মারিন ভারতীয় সিনিয়র পুরুষ হকি দলের ৯ মাস কোচ ছিলেন। ২০১৮ সালের গোল্ড কোস্ট কমনওয়েলথ গেমসে খারাপ পারফরম্যান্সের পরেই তাঁকে সরানো হয়েছিল। পরবর্তীতে তিনি ভারতীয় সিনিয়র মহিলা হকি দলের দায়িত্ব নেন। তাঁর কোচিংয়েই টোকিয়ো অলিম্পিক গেমসে চতুর্থ স্থানে শেষ করেছিল ভারতীয় মহিলা হকি দল।

বন্ধ করুন