বাংলা নিউজ > ময়দান > শুধু গতি নয়, বডি ল্যাঙ্গুয়েজ দিয়েও ভয় দেখাবে বাংলাদেশের বোলাররা! ডোনাল্ডের হুঙ্কার
বাংলাদেশের বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ড (ছবি-এএফপি)

শুধু গতি নয়, বডি ল্যাঙ্গুয়েজ দিয়েও ভয় দেখাবে বাংলাদেশের বোলাররা! ডোনাল্ডের হুঙ্কার

  • টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে অ্যালান ডোনাল্ড বাংলাদেশের বোলারদের এখন সেটাই শেখাচ্ছেন। তিনি এবার তাসকিন, এবাদত, হাসান, সাইফুদ্দিনদের সামনে রেখে বিশ্ব ক্রিকেটকে হুঙ্কার দিয়ে রাখলেন। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পেসারদের ছোট করে দেখলে বিপদ আছে!

বেশ কয়েক মাস হল বাংলাদেশ ক্রিকেটের ফাস্ট বোলিং-এর কোচিং দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছন অ্যালান ডোনাল্ড। বিশ্বকাপের আগে নিজের অভিজ্ঞতা দিয়ে টাইগারদের আরও শক্তিশালী করে তুলছেন প্রাক্তন প্রোটিয়া তারকা। বিপক্ষ ব্যাটসম্যানকে শুধু গতি দিয়ে নয়, বডি ল্যাঙ্গুয়েজ দিয়েও ভয় দেখাতে হবে। ফাস্ট বোলিং এখন শরীরী ভাষারও খেলা। টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে অ্যালান ডোনাল্ড বাংলাদেশের বোলারদের এখন সেটাই শেখাচ্ছেন। তিনি এবার তাসকিন, এবাদত, হাসান, সাইফুদ্দিনদের সামনে রেখে বিশ্ব ক্রিকেটকে হুঙ্কার দিয়ে রাখলেন। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পেসারদের ছোট করে দেখলে বিপদ আছে!

ক্রিকেট জীবনে তাঁর বিরুদ্ধে খেলতে গিয়ে চাপে পড়েছেন বহু নামি দামি ব্যাটসম্যান। এবার নতুন ভূমিকায় সকলকে চমকে দিতে চান অ্যালান ডোনাল্ড। দক্ষিণ আফ্রিকান কিংবদন্তি জানিয়েছেন তিনি পাঁচ-ছয় মাস ধরেই নতুন বলে পেসারদের মানসিকতা নিয়ে কাজ করেছেন, যাঁর ফ  বিশ্ব ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে দেখতে পাবে। আসলে এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কা বনাম বাংলাদেশের ম্যাচের আগে বাংলাদেশের বোলারদের নিয়ে কটাক্ষ করেছিলেন শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটাররা। পরে বাংলাদেশকে হারিয়েও ছিল শ্রীলঙ্কা। তারপর থেকেই বাংলাদেশের বোলিং নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। এবার সেই প্রশ্নেরই জবাব দিলেন অ্যালান ডোনাল্ড।

আরও পড়ুন… অস্ট্রেলিা সিরিজ শুরু হওয়ার আগেই নতুন হেয়ারস্টাইলে সামনে এলেন বিরাট কোহলি 

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তনী বাংলাদেশের বোলারদের মাথা ঠান্ডা রেখে বোলিং করার পরামর্শ দিচ্ছেন। ডোনাল্ড বলেন, ‘পেসাররা এখন বোলিং করতে গিয়ে মার খাওয়ার ভয় পায় না। এটা আমার জন্য বিরাট একটা অর্জন। ডেথ ওভার বোলিং টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সবচেয়ে কঠিন কাজ। বোলারের জন্য ম্যাচের উত্তাপটা সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় পৌঁছায় ঠিক তখন ঠান্ডা মাথায় সিদ্ধান্ত নেওয়াটা সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং।’

এবাদতকে নিয়ে বাজি ধরছেন ডোনাল্ড। তিনি বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার সব মাঠে এবাদত কার্যকর হতে পারেন। খুব বেশি মুভমেন্ট থাকবে না। কিন্তু ওই অতিরিক্ত গতি, যেটা এবাদতের আছে, সেটা ব্যাটসম্যানের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা এলোমেলো করে দিতে পারে। অস্ট্রেলিয়ায় কমপক্ষে ১২-১৪ ওভার পেস বোলিংকে করতে হবে।’

আরও পড়ুন… T20WC- শামি, আইয়াররা কি দলের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ায় যাবেন?

দেশের বাইরে মোস্তাফিজুর রহমানের ফর্ম নিয়ে ডোনাল্ড বলেন, ‘আমরা দেখেছি, সে ইয়র্কার দেওয়ার ক্ষেত্রে কতটা ধারাবাহিক। গত কয়েক মাসে সে হয়তো সেই পুরোনো ছন্দে নেই। নিজের অভিজ্ঞতা থেকে বলি, চাপের মুহূর্তে ইয়র্কার দেওয়ার আত্মবিশ্বাস যখন থাকবে না, যখন শুধু স্লোয়ার বলের ওপর নির্ভর করবেন, তখন কাজটা খুবই কঠিন হয়ে যায়। আমি ওর সঙ্গে এটা নিয়ে কথা বলেছি। আশা করছি, যেখানে সে ছিল, আমি তাকে সেখানে ফিরিয়ে নিতে পারব।’

ডোনাল্ডের বিশ্বাস, তাসকিন, ফিজ, এবাদত, হাসান, সাইফুদ্দিন অবশ্যই এদের নিয়ে সাজানো পেস আক্রমণ যে কোনও দিন, যে কোনও দলকে চমকে দিতে পারে। তিনি বলেন, ‘কোনও সন্দেহ নেই, অস্ট্রেলিয়ায় এরা চমক দেখাবে। সবচেয়ে বড় কথা একজন ফাস্ট বোলারের যে মানসিকতা থাকা দরকার সেটা এখন বাংলাদেশ পেসারদের মধ্যে অনেকটাই এসেছে।’

বন্ধ করুন