বাংলা নিউজ > ময়দান > পাকিস্তানের অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হলেন সাকলিন মুস্তাক এবং আব্দুল রজ্জাক
সাকলিন মুস্তাক এবং আব্দুল রজ্জাক।
সাকলিন মুস্তাক এবং আব্দুল রজ্জাক।

পাকিস্তানের অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হলেন সাকলিন মুস্তাক এবং আব্দুল রজ্জাক

  • সামনেই নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সাদা বলের সিরিজ রয়েছে। সেই সিরিজের জন্য আপাতত সাকলিন মুস্তাক এবং আব্দুল রজ্জাকের কাঁধেই বাবর আজমদের দায়িত্ব তুলে দেওয় হয়েছে। ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজ খেলতে নামবে পাকিস্তান।

কিছুটা হঠাৎ করেই পাকিস্তান ক্রিকেট দলের হেড কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন মিসবা উল হক। তাঁর পথই অনুসরণ করলেন বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনিসও। তাও আরও এক বছরের চুক্তি ছিল দুই কোচের সঙ্গে। তবু তারা সরে দাঁড়িয়েছেন। তাঁদের পরিবর্তে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হিসেবে নিযুক্ত করেছেন সাকলিন মুস্তাক এবং আব্দুল রজ্জাককে।

সামনেই নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সাদা বলের সিরিজ রয়েছে। সেই সিরিজের জন্য আপাতত সাকলিন মুস্তাক এবং আব্দুল রজ্জাকের কাঁধেই বাবর আজমদের দায়িত্ব তুলে দেওয় হয়েছে। ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজ খেলতে নামবে পাকিস্তান। তিনটি একদিনের ম্যাচ এবং পাঁচটি টি-টোয়েন্টি খেলবে পাকিস্তান-নিউজিল্যান্ড। হাতে বিশেষ সময় না থাকায় এই সিরিজের জন্য আপাতত সাকলিন মুস্তাক এবং আব্দুল রজ্জাকের উপরেই ভরসা রাখছে পিসিবি।

টি-২০ বিশ্বকাপ শুরু হতে আর মাস দেড়েক বাকি। এই অবস্থায় পাক ক্রিকেটে চূড়ান্ত ডামাডোল। মিসবা উল হক এবং ওয়াকার ইউনিস সরে দাঁড়ানোয় বিশ্ব ক্রিকেটে জোর চর্চা শুরু হয়েছে। কাকতলীয় বিষয় হল, সোমবার বিশ্বকাপের জন্য দল ঘোষণা করে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। ঠিক তার পরেই মিসবারা কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করেন।

পিসিবির তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করে মিসবাদের পদত্যাগের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়। সেই সঙ্গে ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্ অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হিসেবে দায়িত্ব তুলে দেয় সাকলিন মুস্তাক ও আব্দুল রাজ্জাকের কাঁধে।

মিসবা ও ওয়াকার, উভয়েই পাকিস্তান দলের দায়িত্ব নেন ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে। দু'জনেরই চুক্তির মেয়াদ এখনও এক বছর বাকি ছিল। অন্যদিকে, সিনিয়র দলের দায়িত্ব পাওয়া সাকলিন পাকিস্তানের ন্যাশনাল হাই পারফর্ম্যান্স সেন্টারের বোলিং কোচের পদে নিযুক্ত ছিলেন।

পিসিবির বিজ্ঞপ্তিতে মিসবা জানিয়েছেন যে, তিনি পরিবারকে সময় দিতেই সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সেই সঙ্গে তিনি এও জানিয়েয়েছেন যে, হয়ত সময়টা যথাযথ নয়, তবে এই মুহূর্তে নতুন কারও দায়িত্ব নেওয়াই ভাল বলে মনে হয়েছে তাঁর।

ওয়াকার ইউনিস বিজ্ঞপ্তিতে পদত্যাগের যে কারণ দেখিয়েছেন, তা নিতান্ত হাস্যকর মনে হওয়াই স্বাভাবিক। যে জন্যই দুই কোচের পদত্যাগের পিছনে অন্য কোনও কারণ রয়েছে বলে ধারণা জোরালো হচ্ছে। ওয়াকার জানান, যেহেতু একসঙ্গে দায়িত্ব নিয়েছিলেন, তাই মিসবা সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়ায় তিনিও পদত্যাগ করলেন। একসঙ্গে দায়িত্ব নিয়েছিলেন, একসঙ্গে কাজ করেছেন এবং একসঙ্গে সরে দাঁড়াচ্ছেন দু'জনে, এটাই ছিল ওয়াকারের যুক্তি।

বন্ধ করুন