বাংলা নিউজ > ময়দান > ‘ওর দুর্বলতাকেই কাজে লাগাবে প্রতিপক্ষ’, শ্রেয়সকে হুঁশিয়ারি ভারতের প্রাক্তনীর
শ্রেয়স আইয়ার।

‘ওর দুর্বলতাকেই কাজে লাগাবে প্রতিপক্ষ’, শ্রেয়সকে হুঁশিয়ারি ভারতের প্রাক্তনীর

  • দক্ষিণ আফ্রিকা টি-টোয়েন্টি সিরিজে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল বিরাট কোহলিকে। একই সঙ্গে চোটের কারণে ছিটকে গিয়েছেন সূর্যকুমার যাদবও। এই দুই খেলোয়াড়ের অনুপস্থিতিতে শ্রেয়স আইয়ার তিন নম্বরে ব্যাট করার সুযোগ পেলেও, খুব একটা মুগ্ধ করতে পারেননি।

ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ ২-২ ড্র হয়ে গিয়েছে। এই সিরিজে এমন অনেক ভারতীয় ব্যাটসম্যান ছিলেন, যাঁদের বহু দুর্বলতাই সামনে উঠে এসেছে। এর মধ্যে একটি নাম ডানহাতি ব্যাটসম্যান শ্রেয়স আইয়ার। শ্রেয়স পুরো সিরিজ জুড়ে স্পিনারদের বিরুদ্ধে ভালো খেলেছেন। কিন্তু ফাস্ট বোলারদের বিরুদ্ধে তাঁকে সমস্যায় পড়তে হয়েছে বারবার।

দক্ষিণ আফ্রিকা টি-টোয়েন্টি সিরিজে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল বিরাট কোহলিকে। একই সঙ্গে চোটের কারণে ছিটকে গিয়েছেন সূর্যকুমার যাদবও। এই দুই খেলোয়াড়ের অনুপস্থিতিতে শ্রেয়স আইয়ার তিন নম্বরে ব্যাট করার সুযোগ পেলেও, খুব একটা মুগ্ধ করতে পারেননি। প্রথম ম্যাচে ২৭ বলে ৩৬, দ্বিতীয় ম্যাচে ৩৫ বলে ৪০, তৃতীয় ম্যাচে ১১ বলে ১৪ এবং চতুর্থ ম্যাচে করেন ২ বলে মাত্র ৪ রান। শেষ ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে বাতিল হয়ে যায় এবং তাই সেই ম্যাচে খেলার সুযোগও তিনি পাননি। কোনও রান না করেই অপরাজিত থাকেন শ্রেয়স।

আরও পড়ুন: দলে রাখলে বিপর্যয় হবে- পন্তকে দরাজ সার্টিফিকেট দ্রাবিড়ের, ফুঁসে উঠলেন নেটিজেনরা

আরও পড়ুন: পূজারা না শুভমন- দ্বিতীয় ওপেনার কে হবেন? স্পষ্ট ইঙ্গিত দিল BCCI

বেশ কিছু দিন ধরেই ফাস্ট বোলারদের বিরুদ্ধে লাগাতার বিপাকে পড়তে হচ্ছে শ্রেয়সকে। ২০২২ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্যও আইয়ারের নাম আলোচনায় রয়েছে। যাইহোক, ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার মদন লাল মনে করেন, আইয়ার যদি টুর্নামেন্টের আগে ফাস্ট বোলারদের বিরুদ্ধে তাঁর দুর্বলতা নিয়ে কাজ করতে না পারেন, তবে অস্ট্রেলিয়ায় কিন্তু মহা বিপদে পড়তে হবে শ্রেয়সকে।

স্পোর্টস তকে এক সাক্ষাৎকারে মদন লাল বলেছেন, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যদি ক্রিকেটারের কোনও দুর্বলতা প্রতিপক্ষ খুঁজে পায়, তবে ওরা সেটা ধরে চাপে ফেলে দেবে (শ্রেয়স আইয়ারের শর্ট-বল দুর্বলতা)। এটা ভাবার কারণ নেই, ওরা সুবিধে নেবে না। এখন শ্রেয়সকে নিজেকে গুছিয়ে নিতে হবে। এই দুর্বলতা কাটিয়ে ওঠার উপায় বের করতে হবে। ও ১০০ স্কোর করলেও হাততালি পাবে, কিন্তু বিপক্ষ দল রেহাই দেবে না। এখানে কোনও করুণা নেই। বিপক্ষ দলের বোলাররা ওকে শর্ট বোলিং করতে থাকবে। যে ধরনের প্রযুক্তি রয়েছে, যে কোনও দলই এখন প্রতিপক্ষের উপর কড়া নজর রাখে।’

বন্ধ করুন