বাংলা নিউজ > ময়দান > ৩০টি চার, ৩২টি ছক্কা! মারকাটারি ম্যাচে ৩৬ বলে ৯৩ রান করেও দলকে জেতাতে পারলেন না ব্রুস
দাপুটে জয় ক্যান্টারবেরির। ছবি- সুপার স্ম্যাশ।

৩০টি চার, ৩২টি ছক্কা! মারকাটারি ম্যাচে ৩৬ বলে ৯৩ রান করেও দলকে জেতাতে পারলেন না ব্রুস

  • হাই-স্কোরিং ম্যাচ এত অনায়াসে জিততে খুব কম দলকেই দেখা গিয়েছে।

টি-২০ ক্রিকেটকে কেন ব্যাটসম্যানদের খেলা বলে বিবেচনা করা হয়, বোঝা গেল আরও একবার। সুপার স্ম্যাশে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টস বনাম ক্যান্টারবেরি ম্যাচে যে রকম চার-ছক্কার ফুলঝুরি দেখা গেল, তাতে বছর শেষে পয়সা উসুল মনোরঞ্জন হয় দর্শকদের।

দুই ইনিংস মিলিয়ে সারা ম্যাচে ৩০টি বাউন্ডারি দেখা যায়। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, গোটা ম্যাচে দু'দলের ব্যাটসম্যানরা ছক্কা হাঁকিয়েছেন ৩২টি। সুতরাং, চারের থেকেও বেশি ছক্কা দেখা গিয়েছে ম্যাচে। এমন হাই-স্কোরিং ম্যাচ এত অনায়াসে জিততে খুব কম দলকেই দেখা গিয়েছে।

প্রথমে ব্যাট করে সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টস নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ২১৭ রানের বিশাল ইনিংস গড়ে তোলে। তবে এমন পাহাড়প্রমাণ রান তাড়া করতে নেমে ক্যান্টারবেরি ১৬ বল বাকি থাকতেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায়। ১৭.২ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ২২১ রান তুলে ম্যাচ জেতে তারা।

দল হারায় ব্যর্থ হয় সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টসের ক্যাপ্টেন টম ব্রুসের ৩৬ বলে অপরাজিত ৯৩ রানের অবিশ্বাস্য ইনিংস। টম আতশীয় ইনিংসে ৮টি চার ও ৮টি ছক্কা মারেন। তিনি ইনিংসের শেষ ওভারে ৪টি ছক্কা ও ১টি চার মারেন। সেই ওভারে মোট ৩১ রান ওঠে। এছাড়া সেন্ট্রালের হয়ে ৩২ বলে ৬১ রান করেন ড্যান ক্লেভার।

ক্যান্টারবেরির হয়ে ক্যাম ফ্লেচার ১টি চার ও ৬টি ছক্কার সাহায্যে ২১ বলে ৪৮ রান করে অপরাজিত থাকেন। ৩৫ বলে ৫৬ রান করেন লিও কার্টার। হনরি শিপলি ১টি চার ও ৫টি ছক্কার সাহায্যে ১১ বলে ৩৯ রান করে নট-আউট থাকেন। আজাজ প্যাটেল ২ ওভারে ৩১ রান খরচ করে ১টি উইকেট দখল করেন।

বন্ধ করুন