দানিশ কানেরিয়া
দানিশ কানেরিয়া

শোয়েব ঠিক বলেছে, আমি হিন্দু বলে বঞ্চনার শিকার হয়েছি- ইমরানের হস্তক্ষেপ চেয়ে জানালেন কানেরিয়া

নয়া বিতর্ক পাকিস্তান ক্রিকেটে।

হাটে হাঁড়ি ভেঙেছিলেন শোয়েব আখতার। তারপরেই প্রকাশ্যে চলে এল পাকিস্তান ক্রিকেটের মধ্যে কদর্য সাম্প্রদায়িকতা। হিন্দু বলে বিভিন্ন সময় বঞ্চনা ও লাঞ্ছনার শিকার হতে হয়েছে স্পিনার দানিশ কানেরিয়াকে। শোয়েব সত্যি কথা বলছেন, টুইটারে জানিয়েছেন কানেরিয়া। তাঁকে সাহায্য করার জন্য তিনি অন্যদের সঙ্গে ইমরান খানেরও সাহায্য চেয়েছেন। তবে এই ঘটনা নিয়ে রাজনীতি করা উচিত নয় বলে জানিয়েছেন কানেরিয়া।

পিটিভিতে একটি ইন্টারভিউতে শোয়েব আখতার জানিয়েছিলেন, যে হিন্দু বলে কানেরিয়ার সঙ্গে বৈষম্য করা হত। দল তাঁর জন্য জিতলেও কানেরিয়াকে কৃতিত্ব দেওয়া হত না। এমনকী কেউ কেউ কানেরিয়ার সঙ্গে খেতে চাইতেন না বলে অভিযোগ পাক বোলারের।


এরপর কানেরিয়া টুইটারে বলেন যে শোয়েব যা বলেছেন তা সম্পূর্ণ সত্যি। খুব দ্রুত তিনি কিছু নাম প্রকাশ করবেন বলেও জানান কানেরিয়া। এরপর একটি বিবৃতি তিনি টুইট করেছেন।


বর্তমান সঙ্কট থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ইমরান খান সহ অন্যান্য প্রাক্তন খেলোয়াড়দের হস্তক্ষেপের অনুরোধ করেছেন তিনি। প্রসঙ্গত, ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগের কারণে ২০১২ সালে সাসপেন্ড হন কানেরিয়া। সেখানেই ইতি পড়ে তাঁর ক্রিকেট জীবনের।

বিবৃতিতে ক্রিকেট জীবনে যারা তাঁকে সমর্থন করেছেন, তাদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন তিনি। টেস্ট ক্রিকেটে পাকিস্তানের হয়ে চতুর্থ সর্বোচ্চ উইকেট গ্রাহক তিনি। কিন্তু পাকিস্তান ক্রিকেটের ইতিহাসে নেহাতই ফুটনোট তিনি। দেশের হয়ে ক্রিকেট খেলা দ্বিতীয় হিন্দু দানিশ কানেরিয়া বলেন যে কিছু মানুষ তাঁর বিরোধিতা করেছিলেন। কিন্তু যারা সমর্থন করেছিলেন, তাদের সাহায্যেই তিনি যাবতীয় বিরোধিতাকে জয় করেছিলেন বলে জানিয়েছেন কানেরিয়া।

অনেক খেলোয়াড় যাদের বিরুদ্ধে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগ ছিল, তাঁরা এখন সমাজের মূলস্রোতে ফিরে এসেছেন। কোনও ভাবে তাঁরা ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত। কানেরিয়া লিখেছেন যে অনেকের সমস্যার সমাধান হয়ে গেলেও তিনি এখনও সেই তিমিরে। তবে তাঁর আশা যে দেশের মানুষ তাঁকে সাহায্য করবে। পাকিস্তানের জন্য পারফর্ম করে তিনি অত্যন্ত গর্বিত, বলেন কানেরিয়া।




বন্ধ করুন