বাংলা নিউজ > ময়দান > সামান্য বেশি টাকার জন্য কেন ফ্যান্টান্সি গেমের বিজ্ঞাপন দিচ্ছেন সৌরভ, প্রশ্ন রামচন্দ্র গুহের
আইপিএল ফাইনালে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় (ফাইল ছবি, সৌজন্য আইপিএল)

সামান্য বেশি টাকার জন্য কেন ফ্যান্টান্সি গেমের বিজ্ঞাপন দিচ্ছেন সৌরভ, প্রশ্ন রামচন্দ্র গুহের

  • কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রটরের প্রাক্তন সদস্য বলেন, 'যদি বোর্ডের প্রেসিডেন্ট এরকম ব্যবহার করেন, তাহলে বোর্ডের নৈতিকতার মান পড়ে যায়।’

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট হয়েও কেন ফ্যান্টাসি গেমের বিজ্ঞাপন দিচ্ছেন? তা নিয়ে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ করলেন ইতিহাসবিদ তথা কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রটরের প্রাক্তন সদস্য রামচন্দ্র গুহ।

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে স্বার্থ সংঘাতের বিষয়ে মুখ খোলেন ইতিহাসবিদ। যা ভারতীয় ক্রিকেটের ক্ষেত্রে ‘সর্বনাশা’ বলে মন্তব্য করেন তিনি। বলেন, ‘সবথেকে বড় সর্বনাশা নয়, এটা সর্বনাশা। আজ (সৌরভ) গঙ্গোপাধ্যায়ের দিকে তাকান, যিনি (ক্রিকেট) বোর্ডের প্রধান, তিনি ক্রিকেট ফ্যান্টাসি গেমের প্রতিনিধিত্ব করছেন। ভারতীয় ক্রিকেটারদের মধ্যে অর্থের প্রতি এরকম লোভ অতিশয় বেদনাদায়ক।’

নিজের নয়া বই ‘কমনওয়েলথ অফ ক্রিকেট : আ লাইফলং লাভ অ্যাফেয়ার উইথ দ্য সাবটেল অ্যান্ড সফিসটিকেটেড গেম কোন টু হিউম্যানকাইন্ড’-এ ভারতীয় ক্রিকেট প্রশাসনের ছবি তুলে ধরেছেন ইতিহাসবিদ। তিনি বলেন, ‘আমার বইয়ে বিষেণ সিং বেদীকে নিয়ে সবথেকে মনোগ্রাহী গল্প আছে। যিনি বলেছিলেন যে (আফগানিস্তানের ক্রিকেটারদের কোচিংয়ের জন্য) তিনি কাবুল যেতেও তৈরি - ক্রিকেটের জন্য যে কোনও প্রান্তে যেতে তৈরি এবং অর্থের জন্য নয়। কিছুটা বাড়তি অর্থের জন্য কেন (সৌরভ) গঙ্গোপাধ্যায় কেন এই কাজগুলি করছেন? যদি বোর্ডের প্রেসিডেন্ট এরকম ব্যবহার করেন, তাহলে বোর্ডের নৈতিকতার মান পড়ে যায়।’

উল্লেখ্য, অনলাইন জুয়া নিয়ে এবং তাতে সৌরভ, বিরাট কোহলির মতো তারকাদের উপস্থিতি নিয়ে মাদ্রাজ হাইকোর্টের মাদুরাই বেঞ্চে ইতিমধ্যে একটি জনস্বার্থ মামলা চলছে। গত ৩ নভেম্বর সৌরভ, বিরাট, অভিনেতা তামান্না ভাটিয়া, প্রকাশ রাজদের নামে নোটিশ জারি করেছিল ডিভিশন বেঞ্চ। পরে ১৯ নভেম্বরের শুনানিতে বিচারপতি এন কিরুবাকরণ এবং বিচারপতি বি পুগালেনন্ধী অনলাইন জুয়ার প্রভাব নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। বিচারপতি কিরুবাকরণ মন্তব্য করেন, সৌরভ একজন তারকা। উনি যদি নিজে বিজ্ঞাপনে থাকেন, তাহলে মানুষ প্রভাবিত হন। আগামী ১০ ডিসেম্বর মামলাটির শুনানি আবারও হবে।

বন্ধ করুন