বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > হাওড়া করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ 'বদল', তদন্তের নির্দেশ
করোনা আক্রান্তের দেহ বদলের অভিযোগ (ফাইল ছবি)
করোনা আক্রান্তের দেহ বদলের অভিযোগ (ফাইল ছবি)

হাওড়া করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ 'বদল', তদন্তের নির্দেশ

এর আগে প্রশ্নের মুখে পড়েছিল কলকাতার ন্যাশানাল মেডিকেল কলেজ। 

করোনায় আক্রান্ত এক ব্যক্তির মৃতদেহ বদলের অভিযোগকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য হাওড়ায়। ঠিক কী হয়েছিল ওই পরিবারের সঙ্গে? পরিবার সূত্রে খবর, গত ১৫ই এপ্রিল আমতার বাসিন্দা আসিরুফ মিদ্দা আমতা গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। তাঁর হৃদযন্ত্রের সমস্যা ছিল। তাঁর করোনা পরীক্ষাও করা হয়। দেখা যায় তাঁর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ রয়েছে। এরপরই তাঁকে বালটিকুরি ইএসআই কোভিড হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানেই চিকিৎসা চলছিল তাঁর। এরপরই গত ১৭ই এপ্রিল তাঁর বাড়িতে খবর আসে মৃত্যু হয়েছে ওই ব্যক্তির। পরিবারের দাবি, দুপুর আড়াইটের সময় মৃত্য়ু হয়েছিল তাঁর। পরিবারের কাছে বিকাল সাড়ে ৪টের সময় খবর দেওয়া হয়। এদিকে কোভিড আক্রান্তের মৃত্যু বলে কথা! নানা সরকারি ছাড়পত্র জোগাড় করতে রাত হয়ে যায় পরিবারের। এরপর রবিবার হাসপাতালে যান পরিবারের লোকজন। কিন্তু সেখানে মৃতদেহ দেখে চক্ষু চড়কগাছ পরিবারের সদস্যদের।

 পরিবারের সদস্যদের দাবি, যে দেহ তাদের দেখানো হয়েছে তিনি আসিরুফ মিদ্দা নন। এরপরই ক্ষোভে ফেটে পড়েন রোগীর পরিজনরা। ঘটনার দ্রুত তদন্তের নির্দেশ দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু কীভাবে বদলে গেল আস্ত একটি মৃতদেহ? প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে কর্মীদের একাংশের গাফিলতির কারণেই এই ঘটনা হতে পারে। কোভিড আক্রান্তের দেহ দেওয়ার ক্ষেত্রে বেশ কিছু প্রটোকল রয়েছে। তার জেরেই হয়তো এই বিপত্তি। 

হাসপাতাল সূত্রে খবর, শনিবার ওই হাসপাতালে পাঁচজন ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছিল। অন্যান্য দেহ তাদের পরিজনরা নিয়ে চলে যান। পড়েছিল এই দেহটি। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ওই দেহটি নিতে পরিজনদের কাছে অনুরোধ করে। কিন্তু দেহ নিয়ে অস্বীকার করে পরিজনরা। বাঁকরা থানায় এনিয়ে অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁরা। অনুমান করা হচ্ছে, সম্ভবত আগের দেহগুলির কোনও একটির সঙ্গে আসিরুফের দেহ বদল হয়ে থাকতে পারে। 

 

বন্ধ করুন