নয়ানজুলি থেকে তোলা হয়েছে দুর্ঘটনাগ্রস্ত পুলকার
নয়ানজুলি থেকে তোলা হয়েছে দুর্ঘটনাগ্রস্ত পুলকার

পোলবায় পুকুরে নামল পুলকার, আহতদের গ্রিন করিডর করে আনা হল SSKM-এ

অবস্থার অবনতি হওয়ায় এর পর ৩ জনকে গ্রিন করিডর তৈরি করে চুঁচুড়া থেকে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

সাত সকালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পুকুরে পড়ল পুলকার। হুগলির পোলবার এই ঘটনায় পুলকারের চালকসহ ৫ ছাত্র। এদের মধ্যে ৩ ছাত্রের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় গ্রিন করিডরে করে তাদের আনা হয়েছে কলকাতায়।

জানা গিয়েছে, শ্রীরামপুর থেকে পড়ুয়াদের নিয়ে চুঁচুড়ার খাদিনা মোড়ের একটি স্কুলে পড়ুয়াদের পৌঁছে দিতে যাচ্ছিল পুলকারটি। পুলকারটিতে ছিল ১৪ জন পড়ুয়া ও চালক। সকাল ৭টার কিছু পরে পোলবার কামদেবপুর মোড়ের কাছে দিল্লি রোডের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পুকুরে নেমে যায় পুলকারটি। স্থানীয়রাই চালক ও পড়ুয়াদের উদ্ধার করে চুঁচুড়া ইমামবাড়া হাসপাতালে নিয়ে যান। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদের মধ্যে ২ জনকে আইসিইউতে পাঠান চিকিৎসকরা।

অবস্থার অবনতি হওয়ায় এর পর ৩ জনকে গ্রিন করিডর তৈরি করে চুঁচুড়া থেকে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এজন্য ৫৮ কিলোমিটার পথে তৈরি করা হয় গ্রিন করিডর। আহতদের আনা হয় বিশেষ ট্রমা কেয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে। পথে আহতদের এসএসকেএম হাসপাতালের ট্রমা কেয়ার ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। গোটা প্রক্রিয়ায় নেতৃত্ব দেন শ্রীরামপুরের সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, প্রথমে চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন আহতদের অবস্থা খুব খারাপ। স্থানান্তর সম্ভব নয়। তার পর তাঁরা স্থানান্তরের অনুমতি দেন। ট্রমা কেয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে ভেন্টিলেশনে তাদের আনা হচ্ছে কলকাতায়। আপৎকালীন পরিস্থিতি বিবেচনা করে এসএসকেএম এর ট্রমা কেয়ার সেন্টারে ৪টি শয্যার বন্দোবস্ত হয়েছে। হয়েছে।



বন্ধ করুন