বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‌দল থেকে পাওনা টাকা না পাওয়ায় গাড়ি দিতে নারাজ, ক্ষুদ্ধ বিজেপি থেকে আসা নেতা
সুরজিত সাহা
সুরজিত সাহা

‌দল থেকে পাওনা টাকা না পাওয়ায় গাড়ি দিতে নারাজ, ক্ষুদ্ধ বিজেপি থেকে আসা নেতা

বিজেপির বর্তমান জেলা সভাপতি জানিয়েছেন, তিনি পুরো বিষয়টি রাজ্য নেতৃত্বকে জানাবেন।

রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে মুখ খুলে বিজেপি থেকে বহিষ্কৃত হতে হয়েছিল তাঁকে। এখন তিনি তৃণমূলে। তৃণমূলে গেলেও এখনও বিজেপির সঙ্গে সংঘাত অব্যাহত সুরজিত সাহার। হাওড়া বিজেপির প্রাক্তন জেলা সভাপতি সুরজিত সাহার বিরুদ্ধে অভিযোগ, জেলা সভাপতির নামে দেওয়া গাড়ি তিনি এখনও ব্যবহার করছেন। এদিকে দলের কাছ থেকে পাওনা টাকা না পেলে গাড়ি ছাড়তে নারাজ সুরজিতবাবু।

বিধানসভা ভোটের পরেই রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন হাওড়া জেলার তৎকালীন বিজেপি সভাপতি সুরজিত সাহা। শুভেন্দুবাবুর বিরুদ্ধে মুখ খুলে দলের বিরাগভাজন হয়েছিলেন সুরজিতবাবু। তাঁকে বিজেপি থেকে বহিষ্কার করা হয়। বহিষ্কৃত হওয়ার পর কিছুদিনের মধ্যেই তৃণমূলে যোগ দেন তিনি। কিন্তু তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পরও বিজেপি জেলা সভাপতির নামে দেওয়া গাড়ি ব্যবহার করছেন সুরজিতবাবু। শুধু তাই নয়, সেই গাড়িতে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবিও সাঁটিয়ে নিয়েছেন। সুরজিতবাবু পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, বিজেপির তরফে তাঁকে গাড়ি ফেরত দেওয়ার কথা জানানো হলেও তিনি ফেরত দেবেন না। বিজেপির কাছ থেকে তিনি সাড়ে ৪ লাখ টাকা পান। সেই টাকা না পেলে তিনি গাড়ি ফেরত দেবেন না।

এর ফলে বর্তমান বিজেপি সভাপতি এখনও কোনও গাড়ি পাননি। এই প্রসঙ্গে বিজেপির বর্তমান জেলা সভাপতি জানিয়েছেন, তিনি পুরো বিষয়টি রাজ্য নেতৃত্বকে জানাবেন। উল্লেখ্য, হাওড়ার পুরভোটের জন্য বিজেপির তরফে যে কমিটি গড়া হয়েছিল, সেই কমিটির মাথায় বিজেপি নেতা রথীন চক্রবর্তীকে রাখার জন্য দলের বিরুদ্ধে উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন সুরজিতবাবু। এরপরই গত ১০ নভেম্বর বিজেপি থেকে বহিষ্কৃত হন তিনি।

বন্ধ করুন