বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > West Medinipur: প্রেমে বাধা, প্রেমিকের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করে মাকে খুন করল নাবালিকা, গ্রেফতার ৪
মাকে খুন করল নাবালিকা মেয়ে। প্রতীকী ছবি।
মাকে খুন করল নাবালিকা মেয়ে। প্রতীকী ছবি।

West Medinipur: প্রেমে বাধা, প্রেমিকের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করে মাকে খুন করল নাবালিকা, গ্রেফতার ৪

  • তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির খুন, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। মৃতার নাম অনিতা দত্ত। মেয়ে সহ চারজনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তার স্বামী অংশুজিৎ দত্ত। 

নাবালিকা মেয়ের প্রেমে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন মা। আর সেই কারণে প্রেমিকের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করে নিজের মাকে ঠাণ্ডা পানীয়ের সঙ্গে বিষ খাইয়ে খুন করল নাবালিকা প্রেমিকা। এমনই অভিযোগ উঠেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের কোতোয়ালি থানার পটনাবাজার এলাকায়। এই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ নাবালিকা মেয়ে, তার প্রেমিক এবং প্রেমিকের বাবা-মাকে গ্রেফতার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির খুন, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। মৃতার নাম অনিতা দত্ত। মেয়ে-সহ চারজনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তার স্বামী অংশুজিৎ দত্ত।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই নাবালিকা একটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী। তার প্রেমিকের নাম জিৎ আঢ্য।সে কারিগরি শিক্ষার দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। তার বাড়ি মহাতাবপুর এলাকায়। সোশ্যাল মিডিয়াতে তাদের আলাপ হয়েছিল। এরপর পার্সোনাল চ্যাটিংয়ে তাদের মধ্যে সম্পর্ক আরও দৃঢ় হয়। নাবালিকা মা বিষয়টি জানতে পারার পর তাতে আপত্তি জানান।

অভিযোগ, গত ১৫ এপ্রিল পয়লা বৈশাখের দিন অসুস্থ হয়ে মারা যান ওই মহিলা। সেই সময় চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ওই মহিলার মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু, দিন কয়েক আগেই নাবালিকা তার প্রেমিকের সঙ্গে চ্যাটে পানীয় জলের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খাওয়ানোর প্রসঙ্গ তোলে। সে বিষয়টি কোনওভাবে পরিবারের সদস্যদের নজরে আসে। এরপর গতকাল মেয়ে-সহ বাকিদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন নাবালিকার বাবা। গ্রেফতার করা হয়েছে ওই নাবালিকার প্রেমিক জিৎ আঢ্য, তার মা লেখা সরকার আঢ্য এবং বাবা রঞ্জিত আঢ্যকে। পুলিশ ওই নাবালিকার প্রেমিকের পাঁচদিনের হেফাজতের আবেদন জানিয়েছে। প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান, সম্পর্কে বাধা দেওয়ার কারণে প্রেমিকের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ঠাণ্ডা পানীয়ের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খুন করা হয়েছে ওই মহিলাকে। কীভাবে বা কোথায় পানীয়র সঙ্গে বিষ মেশানো হয়েছিল তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

বন্ধ করুন