বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > জেলা সভাপতি হওয়ার সাধ মেটেনি, বীরভূমে পড়ল BJP-র আরও এক উইকেট
রবিবার তৃণমূলের জেলা সদর দফতরে মাস্ক ছাড়াই অনুব্রত মণ্ডল। 
রবিবার তৃণমূলের জেলা সদর দফতরে মাস্ক ছাড়াই অনুব্রত মণ্ডল। 

জেলা সভাপতি হওয়ার সাধ মেটেনি, বীরভূমে পড়ল BJP-র আরও এক উইকেট

  • আগে বিজেপিতে ভাঙন ধরিয়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন বিজেপির সাধারণ সম্পাদক শুভ্রাংশু চৌধুরী। এরপর যোগ দিলেন অতনু চট্টোপাধ্যায়।

নতুন বছরেও জারি রয়েছে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদানের হিড়িক। রবিবার উত্তর দিনাজপুরের পর বীরভূমেও ভাঙন ধরল বিজেপিতে। পুরনো দল ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করলেন দলের জেলা সম্পাদক অতনু চট্টোপাধ্যায়। জেলা সভাপতি হওয়ার সাধ না মেটায় গত ২৫ ডিসেম্বরই বিজেপির বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছিলেন তিনি।

রবিবার দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ বোলপুরে তৃণমূলের প্রাসাদোপম দলীয় কার্যালয়ে পৌঁছান অতনুবাবু। সেখানেই তিনি তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের হাত ধরে তৃণমূলে যোগদান করেন। বিজেপির দীর্ঘদিনের কর্মী অতনুবাবুর অভিযোগ, পুরনো কর্মীদের গুরুত্ব দেন না বিজেপির রাজ্য নেতারা।

আগে বিজেপিতে ভাঙন ধরিয়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন বিজেপির সাধারণ সম্পাদক শুভ্রাংশু চৌধুরী। এরপর যোগ দিলেন অতনু চট্টোপাধ্যায়। কিছুদিন আগেই তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন বিজেপি ঘনিষ্ঠ আদিবাসী নেতা সুনীল সরেন। এদের প্রত্যেকেই আজ অনুব্রত মণ্ডল একটি করে পদ দেন।

এদিন শুভ্রাংশু চৌধুরীকে জেলার সহ-সভাপতি, অতনু চট্টোপাধ্যায়কে জেলা সম্পাদক এবং সুনীল সরেনকে তৃণমূলের সম্পাদক করা হয়েছে।

অন্যদিকে দল ছাড়ার কারণ হিসাবে এদিন অতনু চট্টোপাধ্যায় জানান, গত ১০ বছরে রাজ্য এবং জেলায় যেভাবে উন্নয়ন হয়েছে তাতেই তিনি বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদানের সিদ্ধান্ত নেন।

 

বন্ধ করুন