বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ঠাকুর দেখতে গিয়ে দিনহাটায় দুই যুবকের গলায় বোতল ঢুকিয়ে দেওয়ার অভিযোগ
সন্ত্রাসের জেরে বার বারই উত্তপ্ত হয়েছে কোচবিহার (প্রতীকী ছবি) (ফাইল ছবি)
সন্ত্রাসের জেরে বার বারই উত্তপ্ত হয়েছে কোচবিহার (প্রতীকী ছবি) (ফাইল ছবি)

ঠাকুর দেখতে গিয়ে দিনহাটায় দুই যুবকের গলায় বোতল ঢুকিয়ে দেওয়ার অভিযোগ

 এই ঘটনার পেছনে কোনও রাজনৈতিক শত্রুতা রয়েছে কি না তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে।

দশমীর রাতে একেবারে ভয়াবহ কাণ্ড দিনহাটায়। স্থানীয় সূত্রে খবর কোচবিহারের দিনহাটায় দশমীর রাতে ঠাকুর দেখতে বেরিয়েছিলেন অনেকেই। ভিড়ও হয়েছিল যথেষ্ট। আচমকাই ঝামেলা বেঁধে যায় দুই দল যুবকের মধ্যে। প্রথমে তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হচ্ছিল। হঠাইই বোতল ভেঙে গলায় ঢুকিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এর জেরে দুই যুবক মারাত্মকভাবে জখম হন। গলগল করে রক্ত বের হতে থাকে। এই ঘটনাকে ঘিরে এলাকায় ব্যাপক অশান্তি ছড়ায়। 

জখম দুই যুবককে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে দিনহাটা থানা থেকে পুলিশ বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিকে গোটা ঘটনাকে ঘিরে ব্যাপক চর্চা শুরু হয়েছে এলাকায়। কেন আচমকা এভাবে গলায় বোতল ভেঙে ঢুকিয়ে দেওয়া হল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। হঠাৎ করেই কোনও উত্তেজনা জেরে এই ঘটনা নাকি এই ঘটনার পেছনে পুরানো কোনও শত্রুতা রয়েছে তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে। 

হাসপাতাল সূত্রে খবর, জখম যুবকদের পরিস্থিতি আপাতত স্থিতিশীল। এদিকে পুলিশ ইতিমধ্যেই অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে। বাসিন্দাদের একাংশের দাবি দিন কয়েক পরেই দিনহাটায় উপনির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। এদিকে রাজনৈতিক সন্ত্রাসে মাঝেমধ্যেই উত্তপ্ত হয় দিনহাটা। সেই নজির সামনে এসেছে বার বারই। সেক্ষেত্রে এই ঘটনার পেছনে কোনও রাজনৈতিক শত্রুতা রয়েছে কি না তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে।

দশমীর রাতে একেবারে ভয়াবহ কাণ্ড দিনহাটায়। স্থানীয় সূত্রে খবর কোচবিহারের দিনহাটায় দশমীর রাতে ঠাকুর দেখতে বেরিয়েছিলেন অনেকেই। ভিড়ও হয়েছিল যথেষ্ট। আচমকাই ঝামেলা বেঁধে যায় দুই দল যুবকের মধ্যে। প্রথমে তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হচ্ছিল। হঠাইই বোতল ভেঙে গলায় ঢুকিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এর জেরে দুই যুবক মারাত্মকভাবে জখম হন। গলগল করে রক্ত বের হতে থাকে। এই ঘটনাকে ঘিরে এলাকায় ব্যাপক অশান্তি ছড়ায়। 

জখম দুই যুবককে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে দিনহাটা থানা থেকে পুলিশ বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিকে গোটা ঘটনাকে ঘিরে ব্যাপক চর্চা শুরু হয়েছে এলাকায়। কেন আচমকা এভাবে গলায় বোতল ভেঙে ঢুকিয়ে দেওয়া হল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। হঠাৎ করেই কোনও উত্তেজনা জেরে এই ঘটনা নাকি এই ঘটনার পেছনে পুরানো কোনও শত্রুতা রয়েছে তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে। 

হাসপাতাল সূত্রে খবর, জখম যুবকদের পরিস্থিতি আপাতত স্থিতিশীল। এদিকে পুলিশ ইতিমধ্যেই অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে। বাসিন্দাদের একাংশের দাবি দিন কয়েক পরেই দিনহাটায় উপনির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। এদিকে রাজনৈতিক সন্ত্রাসে মাঝেমধ্যেই উত্তপ্ত হয় দিনহাটা। সেই নজির সামনে এসেছে বার বারই। সেক্ষেত্রে এই ঘটনার পেছনে কোনও রাজনৈতিক শত্রুতা রয়েছে কি না তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে।

|#+|

 

 

 

বন্ধ করুন