বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > মদ কেনার জন্য পাঁচ বছরের মেয়েকে 'বিক্রি' করল বাবা, ‌অভিযোগ মহিলার
মদ কেনার জন্য পাঁচ বছরের মেয়েকে বিক্রি করল বাবা! ‌অভিযোগ স্ত্রীর : ছবিটি প্রতীকী
মদ কেনার জন্য পাঁচ বছরের মেয়েকে বিক্রি করল বাবা! ‌অভিযোগ স্ত্রীর : ছবিটি প্রতীকী

মদ কেনার জন্য পাঁচ বছরের মেয়েকে 'বিক্রি' করল বাবা, ‌অভিযোগ মহিলার

  • একে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে কাজ খুইয়ে সংসারে অনটন।

একে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে কাজ খুইয়ে সংসারে অনটন। অন্য দিকে, মদ্যপানের আসক্তি। এই নেশা এতটাই চেপে বসল যে, এক বাবা মদ কেনার জন্য তার পাঁচ বছরের কন্যাসন্তানকে বিক্রি করে দিল। এমনি অভিযোগ উঠল। তাঁর স্ত্রী'র অভিযোগ, মদের টাকা যোগাড় করতে না পেরে, তাঁদের পাঁচ বছরের মেয়েকে বিক্রি করে দিয়েছেন স্বামী।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিষ্ণুপুর থানার চণ্ডী গ্রামে। পেশায় দর্জি ওই অভিযুক্তের নাম আলতাব মোল্লা। জানা গিয়েছে, মহামারী পরিস্থিতির মধ্যে কর্মহীন হয়ে পড়েন আলতাব। সংসারে নেমে আসে চরম অনটন। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কাজ হারিয়ে ধীরে ধীরে মদ্যপানে আসক্ত হয়ে পড়েন আলতাব। এই নিয়ে স্বামী-স্ত্রী'র মধ্যে প্রায় অশান্তি লেগে থাকত। এমনকী, স্ত্রী-সন্তানদের মারধরের অভিযোগ উঠেছে আলতাবের বিরুদ্ধে।

পড়শিদের অভিযোগ, মদ খাওয়ার টাকা দেওয়ার জন্য তার স্ত্রী'র উপর অত্যাচার করতেন অভিযুক্ত। এতদিন আলতাবের স্ত্রী রমজানা ঠিকায় পরিচারিকার কাজ করে সংসার চালাচ্ছিলেন। স্বামীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে এরপর পৈলান এলাকায় অন্যত্র ভাড়ায় থাকতে শুরু করেন রামজানা। যদিও ওই গৃহবধূর অভিযোগ, তার দুই ছেলেমেয়েকে সঙ্গে করে নিয়ে যেতে দেয়নি তার স্বামী। গৃহবধূর আরও অভিযোগ, দুই ছেলেমেয়েদের যতবারই আনতে গিয়েছি, স্বামী তাকে ঘরে ঢুকতে না দিয়ে তাড়িয়ে দিয়েছে। এমনকী, বাধা দিতে গেলে ছেলেদেরও মারধর করেছে অভিযুক্ত। কিন্তু তার ছেলে মেয়েদের সঙ্গে দেখা করতে দেননি ওই ব্যক্তি। গৃহবধূর আরও অভিয়োগ, এই ঘটনার পর থেকেই তার ছোট মেয়ে আনিসাকে ওই বাড়িতে আর দেখা যায়নি। বধূর দুই ছেলে কোনক্রমে মায়ের কাছে পালিয়ে আসলেও পাঁচ বছরের শিশুর কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। এই ঘটনার পরই বিষ্ণুপুর থানার দ্বারস্থ হন ওই গৃহবধূ। তাঁর অভিযোগে তিনি জানিয়েছেন যে, মদের টাকা জোগাড় করতে না পেরে, তাঁর পাঁচ বছরের মেয়েকে বিক্রি করে দিয়েছেন আলতাব। ঘটনার তদন্তে নেমেছে বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ।

বন্ধ করুন