বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > তীব্র বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল ভাতার, উড়ে গেল বাড়ির চাল, গ্রামজুড়ে আতঙ্ক
গোটা বাড়িটিকে ঘিরে রাখা হয়েছে।
গোটা বাড়িটিকে ঘিরে রাখা হয়েছে।

তীব্র বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল ভাতার, উড়ে গেল বাড়ির চাল, গ্রামজুড়ে আতঙ্ক

  • তাঁদের ভর্তি করা হয়েছে হাসপাতালে। এই ঘটনার জেরে তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ল পূর্ব বর্ধমানের ভাতার থানা এলাকার বাণেশ্বরপুর গ্রামে।

ভয়াবহ বোমা বিস্ফোরণে শুক্রবার কেঁপে উঠল পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের বাণেশ্বরপুর গ্ৰাম। এই বোমা ফেটে উড়ে গেল মাটির বাড়ির চাল। মুহূর্তের মধ্যে ভেঙে পড়ল গোটা বাড়ি। আর তাতে চাপা পড়ে আহত হলেন বাড়ির তিন সদস্য। তাঁদের ভর্তি করা হয়েছে হাসপাতালে। এই ঘটনার জেরে তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ল পূর্ব বর্ধমানের ভাতার থানা এলাকার বাণেশ্বরপুর গ্রামে। পুলিশ সূত্রে খবর, ঘরের মধ্যেই বোমা মজুত করা ছিল। যা ফেটে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটেছে। খবর দেওয়া হয়েছে বম্ব স্কোয়াডকে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, রাত প্রায় তিনটে। বাণেশ্বরপুর গ্রাম কেঁপে উঠল বোমার শব্দে। বাড়ির বাইরে বেরিয়ে গ্রামবাসীরা দেখেন, জনৈক জামরুল মল্লিকের মাটির বাড়িটি ধুলোয় মিশেছে। আর চাপা পড়ে রয়েছেন জামরুল মল্লিক, তাঁর স্ত্রী মারজেদা বিবি ও ছেলে লালচাঁদ। প্রতিবেশীরাই তাঁদের উদ্ধার করে ভাতার গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান।

জানা গিয়েছে, জামরুল মল্লিক ও তাঁর ছেলে লালচাঁদ কেরলে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করেন। কয়েক সপ্তাহ আগে তাঁরা ভাতারের বাণেশ্বরপুর গ্রামে ফিরেছেন। বৃহস্পতিবার রাতে পাশের গ্রাম কুলনগরের কয়েকজন যুবকের সঙ্গে লালচাঁদ ও তাঁর বন্ধুদের বচসা হয়েছিল। তার জেরেই এই ঘটনা ঘটল কিনা সন্দেহ অনেকের। তবে ঘরে থাকা বোমা ফেটেই যে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে তা প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত তদন্তকারীরা।

পুলিশ সূত্রে খবর, গোটা বাড়িটিকে ঘিরে রাখা হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে পাঠানো হয়েছে চিকিৎসার হাসপাতালে। জামরুল ও লালচাঁদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। আগে লালচাঁদকে অবৈধ অস্ত্র রাখার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছিল। পরে ছেড়ে দেওয়া হয়। বোমা মজুতের ঘটনায় সন্দেহের তির তাই তাঁর দিকেই।

বন্ধ করুন