বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‘‌প্রশাসন আমাকে বলছে এমন বন্যা তো কতই হয়’‌, সেমসাইড গোল তৃণমূল বিধায়কের
রতুয়ার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়।
রতুয়ার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়।

‘‌প্রশাসন আমাকে বলছে এমন বন্যা তো কতই হয়’‌, সেমসাইড গোল তৃণমূল বিধায়কের

  • আর তাতেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে। বন্যাত্রাণ বণ্টন নিয়ে উদাসীনতার অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল বিধায়ক।

একেবারে সেমসাইড গোল। তাও আবার দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক। যা নিয়ে বিস্তর চর্চা শুরু হয়েছে। তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের প্রশাসনের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন তিনি। আর তাতেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে। বন্যাত্রাণ বণ্টন নিয়ে উদাসীনতার অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল বিধায়ক। মালদহ জেলা প্রশাসনকে কাঠগড়ায় তুলে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন রতুয়ার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘‌রাজ্য প্রশাসনের ভূমিকা আমি ভাল দেখছি না। প্রশাসন আমাকে বলছে, এমন বন্যা তো কতই হয়। আমি খুব লজ্জিত এবং দুঃখিত। মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করব।’‌

তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক এই মন্তব্য করার জেরে তা সেমসাইড গোল হিসাবে দেখছেন রাজনৈতিক কুশীলবরা। আর তা নিয়ে দলের অন্দরেই জোর চর্চা শুরু হয়েছে। আসলে নাগাড়ে বৃষ্টি হওয়ায় নদীর জলস্তর বেড়েছে এবং তার জেরে মালদার রতুয়া এক নম্বর ব্লকের বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এখনও ত্রাণশিবিরে রয়েছেন বহু দুর্গত মানুষ। তাঁদেরকেই ত্রাণ পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। সেখানেই গোল বেঁধেছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, গঙ্গা–ফুলহার নদীর জলস্তর বাড়ায় পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার নিয়েছে। জল ঢুকেছে পঞ্চায়েত অফিস ও উপ–স্বাস্থ্যকেন্দ্রে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এটাই সবচেয়ে উঁচু এলাকা। কিন্তু এখন সর্বত্র জল রয়েছে। এই জল–যন্ত্রণা থেকে কি করে মুক্তি পাওয়া যাবে বোঝা যাচ্ছে না। আর গঙ্গা ও ফুলহারের জলস্তর বৃদ্ধির জেরে পুরো এলাকা বানভাসী। তার মধ্যেই গ্রামবাসী থেকে পঞ্চায়েত প্রধান সকলেই সরকারি ত্রাণ নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করছেন।

বিলাইমারি গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান তথা তৃণমূল কংগ্রেস নেতা লুৎফর রহমান বলেন, ‘‌আমাদের এখানে প্রচুর মানুষ বসবাস করেন। আমার কাছে এসেছে সামান্য ত্রাণ। বিডিওকে ত্রাণের জন্য বলেছি।’‌ এই নিয়ে জেলা প্রশাসনকে কাঠগড়ায় তুলে রতুয়ার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‌প্রশাসনের ভূমিকা আমি ভালো দেখছি না। প্রশাসন আমাকে বলছে এমন বন্যা তো কতই হয়। আমি খুব লজ্জিত এবং দুঃখিত। মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করব। জ্যোতিবাবু একটা খুন হলে বলতেন, এমন তো অনেক হয়। জ্যোতিবাবুর ভাষায় প্রশাসন বলছে এমন তো বন্যা অনেক হয়।’‌

বন্ধ করুন