বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > TMC MLA: চিকিৎসককে হুমকি কুকথা প্রসঙ্গে রোগী কল্যাণ সমিতির বৈঠক, অভিযোগ অস্বীকার নির্মলের
 নির্মল মাজি। ছবি সৌজন্য : টুইটার
 নির্মল মাজি। ছবি সৌজন্য : টুইটার

TMC MLA: চিকিৎসককে হুমকি কুকথা প্রসঙ্গে রোগী কল্যাণ সমিতির বৈঠক, অভিযোগ অস্বীকার নির্মলের

  • হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল বৈঠকে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে কাজ না করার অভিযোগ এনেছেন নির্মল মাজি। কলকাতা মেডিক্যালের দুই চিকিৎসক নির্মল মাজির বিরুদ্ধে কটুক্তি এবং হুমকির অভিযোগ তুললেও বৈঠকে সে কথা অস্বীকার করেছেন নির্মল।

কলকাতা মেডিক্যালের ২ চিকিৎসককে হুমকি এবং অশালীন মন্তব্য করার অভিযোগ উঠেছিল চিকিৎসক তথা বিধায়ক নির্মল মাজির বিরুদ্ধে। এনিয়ে রোগী কল্যাণ সমিতির বৈঠক হল। সে বৈঠকে চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগ তুলে সরব হলেন নির্মল মাজি। যদিও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না অভিযোগকারী দুই চিকিৎসক। তাদের বক্তব্য, বৈঠকের জন্য তাদের লিখিত নির্দেশ দেওয়া হয়নি। উল্লেখযোগ্যভাবে, এই বৈঠকে ছিলেন স্বাস্থ্য অধিকর্তা এবং স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তা। তারা অবশ্য কোনও মন্তব্য করতে চাননি।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল বৈঠকে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে কাজ না করার অভিযোগ এনেছেন নির্মল মাজি। কলকাতা মেডিক্যালের দুই চিকিৎসক নির্মল মাজির বিরুদ্ধে কটুক্তি এবং হুমকির অভিযোগ তুললেও বৈঠকে সে কথা অস্বীকার করেছেন নির্মল। তিনি বলেন, ‘দুই চিকিৎসককে বৈঠকে ডাকা হয়েছিল তারা আসেনি। আমি এমন কোনও ধরনের কথা বলিনি।' যদিও চিকিৎসকদের ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গিয়েছে, তাদের বৈঠকে যোগ দেওয়ার জন্য লিখিত কোনও নির্দেশ দেওয়া হয়নি। স্বাস্থ্য-শিক্ষা অধিকর্তা এবং স্বাস্থ্য অধিকর্তার পাশাপাশি, বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়ও। বৈঠক শেষে তিনিও কোনও মন্তব্য করতে চাননি। মন্তব্য করতে চাননি হাসপাতালের অধ্যক্ষও।

সূত্রের খবর, কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের হাসপাতালে কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধানকে নির্মল মাজি হুমকি দেন এবং কুকথা বলেন। অভিযোগকারী চিকিৎসকের নাম কুণাল পান। তাঁর অভিযোগ, ‘রোগী ভর্তি হতে দেরি হচ্ছে কেন?’ এই প্রশ্ন তুলে তাকে হুমকি দেওয়া হয় এবং কুকথা বলা হয়। চিকিৎসকের অভিযোগ, গত বুধবার নির্মল মাজি এক রোগীকে ভর্তির জন্য পাঠিয়েছিলেন। রোগী ভর্তি হতে হয় হতে দেরি হওয়ায় নির্মল মাজি নিজেই জরুরি বিভাগে ঢুকে ওই চিকিৎসকের ওপর চিৎকার করেন। চিকিৎসক বলেন, ‘ভর্তির জন্য কাগজপত্র চেষ্টা করতে একটু সময় লাগে। সেই জন্যই রোগী ভর্তি হতে দেরি হচ্ছিল। তখন নির্মল মাজি আমার দিকে ছাগলের মতো তাকিয়ে আছেন কেন? সেই মন্তব্য করেন। পাশাপাশি সিনিয়র অফিসার অন ডিউটিকে গাধার বাচ্চা বলেও মন্তব্য করেন।’

বন্ধ করুন