বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > রুমাল, ওড়না জড়িয়েও রক্ষা নেই, কোনও অজুহাত শুনব না, হুঁশিয়ারি রেলপুলিশের
মাস্ক নিয়ে কড়াকড়ি ডায়মন্ডহারবারে (নিজস্ব চিত্র)
মাস্ক নিয়ে কড়াকড়ি ডায়মন্ডহারবারে (নিজস্ব চিত্র)

রুমাল, ওড়না জড়িয়েও রক্ষা নেই, কোনও অজুহাত শুনব না, হুঁশিয়ারি রেলপুলিশের

  • করোনার গ্রাফ উপরের দিকে। এখনও মাস্ক ছাড়াই রাস্তায় অনেকে

'কোনও অজুহাত শুনব না। অনেক হয়েছে। রুমাল, ওড়না, শাড়ির আঁচল দিয়ে একটু সময়ের জন্য মুখ ঢেকে নেবেন, এসব চলবে না। মাস্ক পরতেই হবে।' ট্রেন থেকে নামতেই মঙ্গলবার ডায়মন্ডহারবার স্টেশনে এভাবে  রেলপুলিশের মুখোমুখি হলেন যাত্রীদের অনেকেই।  মাইকে সকাল থেকেই ঘোষণা করা হচ্ছে ‘বিনা মাস্ক পরে কেউ স্টেশনে প্রবেশ করবেন না। আগে ১০০ টাকা জরিমানা ছিল। করোনার ভয়াবহতা বৃদ্ধির জন্য রেলের নতুন নির্দেশিকায় এই জরিমানা বৃদ্ধি করে ৫০০ টাকা করা হয়েছে।’ 

তবে এসবের মধ্যেই কিছু রেলযাত্রী মাস্ক ছাড়াই প্লাটফরমে চলে যান। অনেকে আবার ট্রেন থেকে নেমেই দেখেন সামনেই রেলপুলিশ। দ্রুত রুমাল দিয়ে মুখ ঢাকার চেষ্টা করেন তাঁরা। কেউ আবার ওড়না দিয়ে মুখ ঢেকে কোনওরকমে স্টেশন থেকে বেরতে পারলে বাঁচেন। অনেকেই শাড়ির আঁচল দিয়ে মুখ ঢাকার চেষ্টা করেন। কিন্তু রেলপুলিশের কড়া নজরদারির মুখে পড়লেন তাঁরা। 

এক মহিলা রেলযাত্রী মুখে ওড়না জড়িয়ে কোনওরকমে রেলপুলিশের নজর এড়িয়ে স্টেশন ছাড়তে চান। রেলপুলিশের কর্তারা তাঁকে বলেন, ওড়না দিয়ে হবে না। মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। এরপরই সামনে এলেন মুখে রুমাল জড়ানো এক যুবক। রেলপুলিশের হুঁশিয়ারি, 'মাস্ক কোথায় আপনার? এভাবে এক্সকিউজ দেখাবেন না। মাস্ক ব্যবহার করতেই হবে।' এদিকে পুলিশের কড়াকড়ির জেরে এদিন দেখা যায় মাস্কের দোকানেও উপচে পড়ছে ভিড়। তবে রেলযাত্রীদের একাংশের দাবি, মাঝে কড়াকড়ির বিষয়টি একেবারেই কমে গিয়েছিল। তার জেরেই অনেকের মধ্যেই গা ছাড়া মনোভাব হয়ে গিয়েছে। তবে রেলপুলিশ এদিন থেকে কড়াকড়ি শুরু করায় অনেকটা কাজ দেবে। 

 

বন্ধ করুন