বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > গৌড়বঙ্গে শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ পার্থ ঘনিষ্ঠ কৃষ্ণকলির বিরুদ্ধে
ব্রাত্য বসুর সঙ্গে কৃষ্ণকলি বসু।

গৌড়বঙ্গে শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ পার্থ ঘনিষ্ঠ কৃষ্ণকলির বিরুদ্ধে

  • গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অধ্যাপক জানিয়েছেন, ২০২১ সালের শুরুর দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রাতারাতি ১১ জন শিক্ষক নিয়োগ হয়। কৃষ্ণকলি বসুর নির্দেশে হয়েছিল এই নিয়োগ। গভর্নিং কাউন্সিলের কোনও বৈঠক ছাড়াই এই নিয়োগ হয়েছিল বলে জানিয়েছেন কাউন্সিলের সদস্য শিক্ষাবিদ শক্তি পাত্র।

ইন্টারভিউ ছাড়া নিয়োগপত্র দিয়ে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ১১ জন শিক্ষক নিয়োগের অভিযোগ উপাচার্যের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ কৃষ্ণকলি বসু। বিষয়টি নিয়ে শোরগোল শুরু হলে এক প্রশাসনিক বৈঠকে তদন্তেরও নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী কিন্তু ওই পর্যন্তই। তদন্ত এগোয়নি আর।

গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অধ্যাপক জানিয়েছেন, ২০২১ সালের শুরুর দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রাতারাতি ১১ জন শিক্ষক নিয়োগ হয়। কৃষ্ণকলি বসুর নির্দেশে হয়েছিল এই নিয়োগ। গভর্নিং কাউন্সিলের কোনও বৈঠক ছাড়াই এই নিয়োগ হয়েছিল বলে জানিয়েছেন কাউন্সিলের সদস্য শিক্ষাবিদ শক্তি পাত্র। তিনি জানান, তাঁকে অপসারণ করে ওই পদে বসানো হয় কৃষ্ণকলি বসুকে। এর পর রাতারাতি নিয়োগ হয় ১১ জনের। অভিযোগ, এই নিয়োগের জন্য ৬২ লক্ষ টাকা লেনদেন হয়েছিল।

বিষয়টি মালদার তৎকালীন জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্রকে জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। এর পর তদন্ত শুরু হয়। মুখ্যমন্ত্রী মালদা সফরে গিয়ে তদন্তের নির্দেশ দেন। তার পরও তদন্ত আর এগোয়নি। অভিযোগ এক প্রাক্তন কন্ট্রোলারকে সাসপেন্ড করা হলেও বিশ্ববিদ্যালয়ে তার প্রভাব বিন্দুমাত্র কমেনি।

এই নিয়ে চরম অস্বস্তিতে তৃণমূলের স্থানীয় নেতৃত্ব। তারা চাইছেন এই ঘটনার তদন্ত করুক ইডি বা সিবিআই। সেক্ষেত্রে তদন্তের মুখোমুখি হতে তৈরি কারা। তবে দুর্নীতি যে হয়েছিল তা এক স্বরে মেনে নিচ্ছেন সবাই।

 

বন্ধ করুন