বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > রাজ্য চালাতে না পারলে আত্মসমর্পণ করুন, আর সন্ন্যাস নিন, মমতাকে রাহুল সিনহা
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

রাজ্য চালাতে না পারলে আত্মসমর্পণ করুন, আর সন্ন্যাস নিন, মমতাকে রাহুল সিনহা

  • গড়িয়া শ্মশানের লাশ করোনায় মৃতদেরই দাবি বিজেপির।

গড়িয়া শ্মশানের মৃতদেহ করোনায় মৃতদের। রাজ্য প্রশাসনের পদস্থ কর্তাদের লিখিত বিবৃতি সত্বেও নিজেদের অবস্থানে অনড় বিজেপি। এই ঘটনায় এদিন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে বলে দাবি করেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। 

শনিবার বারাসতে দলের জেলা সদর দফতরে এক সাংবাদিক বৈঠকে রাহুলবাবু বলেন, ‘গড়িয়ার শ্মশানে মৃতদেহ কাণ্ডে সরব রাহুল। তিনি সরাসরি বলেন, ১৩টি মৃতদেহই কোরোনা রোগীর। না-হলে এত ছুৎমার্গ থাকে না।‘ 

তিনি বলেন, ‘কোরোনা নিয়ন্ত্রণে রাজ্য সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ। তাই সুপ্রিম কোর্ট রাজ্যকে চূড়ান্ত ভর্ৎসনা করেছে। শুধু তা-ই নয়, কোরোনা মোকাবিলায় রাজ্য সরকার কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট তা হলফনামা দিয়ে জানাতে বলেছে।‘ 

আমফানের ত্রাণ নিয়ে তৃণমূল দুর্নীতি করছে বলে দাবি করেন রাহুল সিনহা। তিনি বলেন, ‘আমফান ঝড়ে দুর্গতদের ত্রাণ দুর্নীতির মাথা খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। কিন্তু জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। তাঁর দপ্তরের সচিবকে বলির পাঁঠা করা হচ্ছে।' বিধানসভা নির্বাচনেতৃণমূলের ভরাডুবি আসন্ন জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে রাহুল এদিন বলেছেন, ‘আপনি যদি না চালাতে পারেন, তাহলে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আত্মসমর্পণ করুন। আর আপনারা সন্ন্যাসে গ্রহণ করে চলে যান।‘ 

এদিনের সাংবাদিক বৈঠকে ছিলেন বিজেপির বারাসত সাংগঠনিক জেলার সভাপতি শংকর চট্টোপাধ্যায়, বিধায়ক দুলাল বর, বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস ও রাজ্য কমিটির সহসভাপতি দেবাশিস মিত্র।

 

বন্ধ করুন