বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > শুভেন্দুর দাপটে আলিপুরদুয়ার তৃণমূলে কি আরও ভাঙন? উঠছে প্রশ্ন
শুভেন্দুর দাপটে আলিপুরদুয়ার তৃণমূলে কি আরও ভাঙন? উঠছে প্রশ্ন। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এএনআই)
শুভেন্দুর দাপটে আলিপুরদুয়ার তৃণমূলে কি আরও ভাঙন? উঠছে প্রশ্ন। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এএনআই)

শুভেন্দুর দাপটে আলিপুরদুয়ার তৃণমূলে কি আরও ভাঙন? উঠছে প্রশ্ন

  • আলিপুরদুয়ারের অনেক নেতাই এখন শুভেন্দু শিবিরের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন বলে সূত্রের খবর।

আলিপুরদুয়ারের অনেক নেতাই এখন শুভেন্দু অধিকারীদের শিবিরের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন বলে সূত্রের খবর। এই খবর দলের কাছে আসতেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, দল কি আরও ভাঙবে? কারণ প্রাক্তন সাংসদ দশরথ তিরকে ও প্রাক্তন পুর চেয়ারম্যান আশিস দত্তের পরে জেলায় দলের নেতারা কেউ কেউ শুভেন্দু অধিকারী শিবিরের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াচ্ছেন বলে বিভিন্ন সূত্রে খবর পেয়েছে ঘাসফুল শিবির। রবিবার বিকেলে দলের কোর কমিটির বৈঠকে এই বিষয়টি উঠে আসে।

দলীয় সূত্রে খবর, ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর থেকেই আলিপুরদুয়ারে তৃণমূলের অন্দরে নতুন করে ‘কোন্দল’ দানা বাঁধতে শুরু করে। অক্টোবরে জেলা কমিটি ঘোষণা হওয়ার পর জেলায় বিভিন্ন জায়গায় কার্যত দলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহে নেমে পড়েন নেতাদের একাংশ। কেউ কেউ প্রকাশ্যেই পদ ও দল ছাড়ার কথা ঘোষণা করেন। কেউ আবার দলের যাবতীয় কর্মসূচি থেকে সরে দাঁড়ান। তারইমধ্যে শুভেন্দুর সঙ্গে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার কথা প্রকাশ্যেই জানিয়ে দেন আলিপুরদুয়ার পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান আশিস দত্ত ও যুব তৃণমূলের প্রাক্তন জেলা সভাপতি বাপ্পা মজুমদার।

এই বিষয়ে দশরথ তিরকে দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেন, ‘নামেই আমাকে দলের চেয়ারম্যান করা হয়েছিল। সম্মান পাচ্ছিলাম না। তাই বিজেপিতে যোগ দিয়েছি। কারণ অসম্মান নিয়ে কাজ করা সম্ভব নয়।’ এরপর থেকেই দলের অন্দরে ভাঙন নিয়ে আলোচনা হতে শুরু করে। এমনকী আর ভাঙন যাতে না ঘটে, তা নিয়েও আলোচনা হয়।

তৃণমূল সূত্রে খবর, দলের বিক্ষুব্ধদের কেউ কেউ শুভেন্দু–শিবিরের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে শুরু করেছেন। রবিবার দলের কোর কমিটির বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। জানুয়ারি মাসে আলিপুরদুয়ারে বড় কোনও জনসভা করা যায়, কিনা সেই বিষয়েও কথা হয়। বৈঠক শেষে জেলা তৃণমূল সভাপতি মৃদুল গোস্বামী বলেন, ‘দলত্যাগীদের নিয়ে কোনও আলোচনা হয়নি। সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।’‌

বন্ধ করুন