বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বিকৃত অঙ্গভঙ্গি করে রিলস বানালেন স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষিকা, বহিষ্কারের দাবি
ফেসবুকে প্রকাশিত ভিডিয়োর স্ক্রিনশট।

বিকৃত অঙ্গভঙ্গি করে রিলস বানালেন স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষিকা, বহিষ্কারের দাবি

  • সম্প্রতি পূর্ব বর্ধমান জেলায় ভাইরাল হয় দুটি পোস্ট। তার একটিতে দেখা যায়, হিন্দি গানের সঙ্গে বিকৃত মুখভঙ্গী করছেন বিজিপুর হাই স্কুলের গণিতের শিক্ষক সুমন্ত দাস। অন্য ভিডিয়োটিতে চটুল ভোজপুরী সংলাপের সঙ্গে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে স্কুলের ভূগোলের শিক্ষিকা সুদীপ্তা মল্লিককে।

বিচিত্র অঙ্গভঙ্গি করে সোশ্যাল মিডিয়ায় গান ও অভিনয় করায় এক শিক্ষক ও শিক্ষিকাকে অপসারণের দাবি উঠল পূর্ব বর্ধমানের ভাতারে। অভিযুক্ত বিজিপুর হাই স্কুলের গণিতের শিক্ষক সুমন্ত দাস ও ভুগোলের শিক্ষিকা সুদীপ্তা মল্লিক। অভিযুক্তদের দাবি, ভিডিয়ো ভুল করে আপলোড হয়ে গেছে। প্রধান শিক্ষকের দাবি, আমার তো ফেসবুক অ্যাকাউন্টই নেই।

সম্প্রতি পূর্ব বর্ধমান জেলায় ভাইরাল হয় দুটি পোস্ট। তার একটিতে দেখা যায়, হিন্দি গানের সঙ্গে বিকৃত মুখভঙ্গী করছেন বিজিপুর হাই স্কুলের গণিতের শিক্ষক সুমন্ত দাস। অন্য ভিডিয়োটিতে চটুল ভোজপুরী সংলাপের সঙ্গে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে স্কুলের ভূগোলের শিক্ষিকা সুদীপ্তা মল্লিককে। এক ব্যক্তি ভিডিয়ো দুটি ফেসবুকে পোস্ট করে লেখেন, ‘এই হচ্ছে আমাদের বিজিপুর হাই স্কুলের গুণধর শিক্ষক-শিক্ষিকা। তাহলে আমাদের ছাত্রছাত্রীদের কী হবে? তারা তো umbrella কে amrela বলবেই। এতে দোষের কিছু নেই। ’

অভিযোগ অস্বীকার করে সুমন্তবাবু বলেন, মেয়ের সঙ্গে মজা করে ভিডিয়ো করছিলাম। কোনও ভাবে মেয়ে ভিডিয়োগুলি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে ফেলে। আমি দেখতে পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে তা ডিলিট করে দিয়েছি। সুদীপ্তাদেবীর দাবি, ‘সন্তানের সঙ্গে মজা করে আমি ভিডিয়োটি বানিয়েছিলাম। মজা করে আমার ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে সেটি পোস্ট করি।’ প্রশ্ন হচ্ছে, নাবালক সন্তানের মনোরঞ্জনের জন্য চটুল ভোজপুরী সংলাপ বেছে নেন, এ কেমন শিক্ষিকা?

প্রধান শিক্ষক সুশান্ত অধিকারী বলেন, ‘আমার তো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নেই। তাই ভিডিয়ো দেখতে পাইনি। তবে শুনেছি এরকম হয়েছে। ওরা স্কুলে এলে ওদের সাবধান করব।’

 

বন্ধ করুন