প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

কেন্দ্রের পথেই হাঁটল রাজ্য, আগামী বছর ১ম থেকে ৮ম শ্রেণিতে ঢালাও পাশের ঘোষণা

  • এছাড়া নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের দূরশিক্ষার মাধ্যমে পঠনপাঠন চালু রাখা যায় কি না তা নিয়ে শিক্ষা দফতর ভাবনা চিন্তা করছে বলে জানিয়েছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ বিকাশ মন্ত্রকের দেখানো পথেই হাঁটল পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষা দফতর। বিনা পরীক্ষাতেই আগামী বছর প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সমস্ত ছাত্রকে উত্তীর্ণ ঘোষণা করল শিক্ষা দফতর। বৃহস্পতিবার এই কথা ঘোষণা করেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

বুধবারই সিবিএসই পাঠ্যক্রমের প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সমস্ত পড়ুয়াকে উত্তীর্ণ ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। তবে রাজ্যের বার্ষিক পরীক্ষা হয়ে গিয়েছে আগেই। নতুন শিক্ষাবর্ষে ক্লাসও শুরু হয়ে গিয়েছে। তাই আগামী শিক্ষাবর্ষে সবাইকে উত্তীর্ণ ঘোষণা করলেন শিক্ষামন্ত্রী।

এছাড়া নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের দূরশিক্ষার মাধ্যমে পঠনপাঠন চালু রাখা যায় কি না তা নিয়ে শিক্ষা দফতর ভাবনা চিন্তা করছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

করোনা সংক্রমণের জেরে গত ১৬ মার্চ থেকে স্কুলে বন্ধ রয়েছে পঠনপাঠন। আপাতত ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত পঠনপাঠন বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে শিক্ষা দফতর। তার পর পরিস্থিতি বুঝে স্কুল খোলার দিনক্ষণ ঠিক করা হবে। কিন্তু সে সবের আগেই ঢালাও পাশের ঘোষণায় প্রশ্ন তুলছেন শিক্ষকমহলের একাংশ।

শিক্ষকদের একাংশের দাবি, করোনার জেরে পঠনপাঠন বন্ধ থাকায় পাঠ্যক্রমে পড়ুয়ারা পিছিয়ে পড়়েছে ঠিকই, কিন্তু ছুটি কমিয়ে বছরের বাকি সময়ে তা পূরণ করে নেওয়া যেত। তারণ হাতে এখনো বেশ কিছুটা সময় রয়েছে। তাই অপেক্ষা না করে আগাম এই ঘোষণাকে ছেলে ভোলানো ছল বলেই মনে করছেন তাঁরা।

বন্ধ করুন