বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > এবার কাঠগড়ায় ব্রাত্য, ২০১৪ টেট দুর্নীতিতে CBI-ED যৌথ তদন্ত চেয়ে আদালতে BJP
ব্রাত্য বসু। ফাইল ছবি
ব্রাত্য বসু। ফাইল ছবি

এবার কাঠগড়ায় ব্রাত্য, ২০১৪ টেট দুর্নীতিতে CBI-ED যৌথ তদন্ত চেয়ে আদালতে BJP

  • বিজেপির তরফে জানানো হয়েছিল, ২০১৪ নিয়োগদুর্নীতিতে যুক্ত বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুও। তার পরই সেই নিয়োগকেও আদেলতে চ্যালেঞ্জ করা হবে বলে জানানো হয় বিজেপির তরফে।

এবার ২০১৪ প্রাথমিক টেটের নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগে কলকাতা হাইকোর্টে দায়ের হল মামলা। বুধবার আদালত সূত্রে জানা গিয়েছে মামলাটি করেছেন বিজেপির রাজ্য কমিটির সদস্য তাপস ঘোষ। ২০১৪ প্রাথমিক টেটের নিয়োগে দুর্নীতি ও অস্বচ্ছতার অভিযোগ তুলে একযোগে CBI ও ED তদন্তের দাবি জানিয়েছেন তিনি। যার ফলে আরও এক নিয়োগপ্রক্রিয়াকে চ্যালেঞ্জ করা হল আদালতে।

SSC ও SLST মামলায় আদালতগঠিত বিচারপতি বাগ কমিটির রিপোর্ট প্রকাশ্যে আসার পর তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে সিবিআইয়ের কাছে হাজিরার নির্দেশ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। পরে যদিও সেই নির্দেশে স্থগিতাদেশ দেয় ডিভিশন বেঞ্চ। কিন্তু আদালত পার্থবাবুকে সিবিআইয়ের কাছে হাজিরা দিতে বলার দিনই বিজেপির তরফে জানানো হয়েছিল, ২০১৪ নিয়োগদুর্নীতিতে যুক্ত বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুও। তার পরই সেই নিয়োগকেও আদেলতে চ্যালেঞ্জ করা হবে বলে জানানো হয় বিজেপির তরফে।

বিজেপির দাবি, ২০১৪ টেট নিয়োগেও চরম দুর্নীতি ও স্বজনপোষণ হয়েছে। এমনকী প্রকাশ্যে সেকথা স্বীকার করেছেন শাসকদলের নেতারা। কৃষ্ণনগরের সাংসদ মহুয়া মৈত্র সাংবাদিক বৈঠকে দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছেন। দমদমের এক তৃণমূল নেতা প্রকাশ্যে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর সুপারিশে প্রায় ৩০০ নিয়োগ হয়েছে প্রাথমিক টেটে। আর শিক্ষামন্ত্রী নিজে সংবাদমাধ্যমের সামনে জানিয়েছেন, তৃণমূল করলে তবেই চাকরি পাওয়া যাবে।

আদালতে বিজেপির দাবি, এই নিয়োগে শুধুমাত্র দলের কর্মীদের প্রতি স্বজনপোষণই করা হয়নি সঙ্গে হয়েছে ব্যাপক টাকার লেনদেন। তাই তদন্তে CBI-এর সঙ্গে ED-কে যুক্ত করাও অত্যন্ত দরকারি। এই মামলার শুনানি নিয়ে আদালতের তরউে এখনও কিছু জানা যায়নি।

 

বন্ধ করুন