বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সংস্কারের বদলে দুষ্প্রাপ্য সামগ্রীর ক্ষতি, প্রশ্নের মুখে কলকাতার ভারতীয় জাদুঘর
কলকাতার ভারতীয় জাদুঘর। ছবি : সংগৃহীত
কলকাতার ভারতীয় জাদুঘর। ছবি : সংগৃহীত

সংস্কারের বদলে দুষ্প্রাপ্য সামগ্রীর ক্ষতি, প্রশ্নের মুখে কলকাতার ভারতীয় জাদুঘর

  • অভিযোগ, যে সংস্থাকে দিয়ে কাজ করানো হয়েছে তাদের ঐতিহ্যবাহী স্থাপত্য সংরক্ষণের কোনও দক্ষতাই নেই।

সংস্কারের কাজ করতে গিয়ে ক্ষতি হয়েছে বহু দুষ্প্রাপ্য ঐতিহাসিক সামগ্রীর। কলকাতার ভারতীয় জাদুঘরের কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তুলেছে কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল (CAG)। সাম্প্রতিক রিপোর্টে এই কথা জানিয়ে সমালোচনা জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ওই সংস্থা। আরও অভিযোগ, যথেষ্ট পরিকল্পনা ছাড়াই ওই সংস্কার প্রকল্পে হাত দেওয়া হয়েছিল।

বুধবার সংসদে পেশ করা ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, সংস্কারের কাজ চলাকালীন স্মৃতিসৌধ পুনরুদ্ধারের জন্য কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকের যে সব নিয়মনীতি ও নির্দেশিকা রয়েছে তার কিছুই মানা হয়নি কলকাতার ভারতীয় জাদুঘরে। অভিযোগ, যে সংস্থাকে দিয়ে কাজ করানো হয়েছে তাদের ঐতিহ্যবাহী স্থাপত্য সংরক্ষণের কোনও দক্ষতাই নেই। সংস্কারের সময় যথাযথ সংরক্ষণ ব্যবস্থা না মানায় অমূল্য ওই নিদর্শনগুলির ক্ষতি হয়েছে।

সংস্কার প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ অর্থ নিয়েও কারচুপির অভিযোগ উঠেছে। CAG–এর রিপোর্টে জানানো হয়েছে, প্রথমে সংস্কারের কাজের জন্য কেন্দ্রীয় বাজেটে মোট ৮৩ কোটি ‌৬৬ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়। পরে তা বাড়িয়ে ১০৫ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা করা হয়েছে। কিন্তু তার মধ্যে ২৫ কোটি ৭৬ লক্ষ টাকার কোনও কাজই করা হয়নি বলে অভিযোগ। যা কাজ হয়েছে সবটাই দায়সারাভাবে।

ওই রিপোর্টে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে প্রকল্প বাস্তবায়নের সময় সংরক্ষিত ঐতিহাসিক সামগ্রীগুলি নির্দিষ্ট স্থানে গচ্ছিত রাখা বা স্টোর করে রাখার কথা বলা হয়। কিন্তু সেই নির্দেশ পুরোপুরি এড়িয়ে গিয়েছে দেশের সব থেকে পুরনো এই জাদুঘরের কর্তৃপক্ষ। যদিও যা অর্থ বরাদ্দ করা হয় তার মধ্যে ১৫ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা শুধু আধুনিক স্টোরেজ ব্যবস্থার জন্য দেওয়া হয়েছিল। এমনকী সংস্কারকার্যের কেন্দ্রীয় নির্দেশে উল্লেখিত অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা ও সিসি টিভিও বসানো হয়নি।

এ ব্যাপারে কলকাতার ভারতীয় জাদুঘরের অফিসিয়েটিং ডিরেক্টর এ ডি চৌধুরী সংবাদসংস্থা পিটিআই–কে জানিয়েছেন, ‘‌আমি গত ছয় মাস ধরে দায়িত্বে রয়েছি। আমার আসার আগেই এই আধুনিকীকরণ ও সংস্কারের কাজ করা হয়েছিল। এ ব্যাপারে কোনও প্রতিক্রিয়া দেওয়ার আগে আমাকে CAG‌–এর রিপোর্ট ও প্রকল্পের বিষয়ে যাবতীয় জানতে হবে।’‌

তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘‌কেন্দ্রের বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সর্বদা ত্রুটি খুঁজতে ব্যস্ত থাকে। তাদের আত্মঅনুসন্ধান করা উচিত এবং এটা দেখা উচিত যে তাদের নিজস্ব দফতরগুলি কীভাবে কাজ করছে।’‌ যদিও রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বে এ ব্যাপারে কিছু বলতে চাননি। তাঁরা CAG‌–এর রিপোর্ট দেখেই প্রতিক্রিয়া দেবেন বলে জানিয়েছেন।

বন্ধ করুন