বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‌কয়লা কেনার ক্ষেত্রে রাজ্যের বকেয়া টাকা মেটাতে চিঠি দিল কেন্দ্র
কয়লা সঙ্কটের জেরে অন্ধকারে ডুবে যাওয়ার শঙ্কায় একাধিক রাজ্য (ছবি সৌজন্যে রয়টার্স) (REUTERS)
কয়লা সঙ্কটের জেরে অন্ধকারে ডুবে যাওয়ার শঙ্কায় একাধিক রাজ্য (ছবি সৌজন্যে রয়টার্স) (REUTERS)

‌কয়লা কেনার ক্ষেত্রে রাজ্যের বকেয়া টাকা মেটাতে চিঠি দিল কেন্দ্র

  • তাঁদের মতে, কয়লা কেনার পরে নিয়মমাফিক কিস্তির পুরো টাকা মিটিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

কয়লা কেনার ক্ষেত্রে রাজ্যের বকেয়া টাকা মেটাতে এবার চিঠি দিল কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রের বিদ্যুৎ সচিব রাজ্যের মুখ্যসচিবকে চিঠি দিয়ে এই কথা জানিয়েছে। উল্লেখ্য, ৩১ জুলাই পর্যন্ত রাজ্য বিদ্যুৎ উন্নয়ন নিগমের কাছে ২১৮২ কোটি টাকা বকেয়া রয়েছে বলে কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে।

প্রশাসন সূত্রে খবর, রাজ্য বিদ্যুৎ উন্নয়ন নিগম তাদের নিজস্ব পাঁচটি খনি থেকে ৭০ শতাংশ কয়লার চাহিদা মেটায়। চাহিদা অনুযায়ী বাকি কয়লা নেওয়া হয় কোল ইন্ডিয়ার থেকে। এই কয়লা কেনার ক্ষেত্রে খরচ হয় ২০০ কোটি টাকারও বেশি। গত ১৮ আগস্ট রাজ্যের মুখ্য সচিব হরিকৃষ্ণ ত্রিবেদীর কাছে চিঠি পাঠান কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎ সচিব অজয় নায়েক। চিঠিতে কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎ সচিব জানান, দেশের আর্থিক গতিবৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুতের চাহিদাও বেড়েছে। কয়লা নির্ভর তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকেই বিদ্যুতের চাহিদা সবথেকে বেশি মেটে। তাই রাজ্যগুলির উচিত সব বিদ্যুৎকেন্দ্রে কয়লার জোগান নিশ্চিত করা। একইসঙ্গে বিদ্যুৎ সচিব জানান, বকেয়া অর্থ না মেটালে কয়লার জোগানে সমস্যা হতে পারে। তবে কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে, কয়লা সংকট সম্পূর্ণ রাজ্যের তৈরি করা। কয়লা সংকট উড়িয়ে দিয়ে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন জানান, কয়লা সংকট কথা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

কেন্দ্রের এই চিঠিতে ক্ষুব্ধ রাজ্য প্রশাসনের কর্তারা। তাঁদের মতে, কয়লা কেনার পরে নিয়মমাফিক কিস্তির পুরো টাকা মিটিয়ে দেওয়া হচ্ছে। অন্যান্য রাজ্যের মতো প্রচলিত নিয়ম মেনেই বকেয়া টাকা মেটানো হচ্ছে। মাসিক কিস্তিতে পুরো টাকাই মিটিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কিছুই এখন আর বকেয়া রাখা হয়নি। আগে যখন রাজ্য বিদ্যুৎ উন্নয়ন নিগম কোল ইন্ডিয়ার কাছ থেকে ৮০ শতাংশ বিদ্যুৎ নিত, সেইসময়কার বকেয়াও প্রচলিত নিয়ম মেনে কিস্তিতে মেটাতে হত।

 

বন্ধ করুন