বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জোটে 'না', বামে মোহভঙ্গ অধীরের,কলকাতা ও হাওড়া পুরভোটে 'একলা চলো' নীতি কংগ্রেসের
অধীররঞ্জন চৌধুরী। (ফাইল ছবি) (PTI)
অধীররঞ্জন চৌধুরী। (ফাইল ছবি) (PTI)

জোটে 'না', বামে মোহভঙ্গ অধীরের,কলকাতা ও হাওড়া পুরভোটে 'একলা চলো' নীতি কংগ্রেসের

  • তৃণমূল স্তরের কর্মীদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে এই সংক্রান্ত নির্দেশ। শুরু হয়েছে প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ।

বিধানসভ নির্বাচনের আগে ছিল 'গলায় গলায় ভাব'। নির্বাচনের কয়েক মাস পরেই বাজতে শুরু করল বিরহের সুর। বিধানসভা নির্বাচনে বাম-কংগ্রেস খালি হাতে ফেরায় সংযুক্ত মোর্চার ভবিষ্যত নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল দুই শিবিরেই। এই আবহে উপনির্বাচনে বামেরা সব আসনেই প্রার্থী দিয়েছিল। কংগ্রেস একটি আসন ছাড়া বাকিগুলিতে 'জোট' করেছিল বামেদের সঙ্গেই। তবে সেই 'জোটে'ও কারোর খাতাতেই কোনও আসন জোটেনি। আর এই পরিস্থিতিতে এবার রাজ্যে বেজেছে পুরভোটের দামামা। আর ফের শুরু হয় বাম-কংগ্রেসের টানাপোড়েন। তবে এবার এক লহমায় ব অনিশ্চয়তা দূর করে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী দানিয়ে দিলেন যে কলকাতা ও হাওড়া পুরভোটে কংগ্রেস একাই লড়বে।

শনিবার বিধান ভবনে কলকাতা ও হাওড়ার পুরভোট নিয়ে বৈঠক করেন অধীরাবু। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অধীরবাবুর জানান, কলকাতা ও হাওড়ার সব আসনেই প্রার্থী দেবে কংগ্রেস। এই সংক্রান্ত নির্দেশও নাকি তৃণমূল স্তরের কর্মীদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। প্রার্থী বাছাইয়ের কাজও শুরু করতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি অধীরবাবু জানিয়ে জেন, জোট নিয়ে বামেদের সঙ্গে কোনও আলোচনা হয়নি তাঁদের।

তবে কলকাতা ও হাওড়ায় জোট না হলেও পরবর্তীতে রাজ্যের যেকোনও পুরভোটে যে দুই পক্ষের জোট হতে পারে, তার একটি ইঙ্গিত দিয়ে রাখেন অধঈর চৌধুরী। এই বিষয়ে তিনি বলেন, 'জেলাস্তরে আলোচনার পর যদি কেউ স্থানীয় স্তরের কোনও আসনে সমঝোতা করতে চায়, তবে জেলা নেতৃত্বই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।' উল্লেখ্য, গত ৩০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে শুধুমাত্র শান্তিপুরেই প্রার্থী দিয়েছিল কংগ্রেস। বাকি তিন আসনে বামেদের সমর্থন করেছিল তারা। তবে এরপরও পুরভোটে জোট নিয়ে বামেদের আগ্রহের অভাবে একলা চলো নীতিতে হাঁটতে চলেছে কংগ্রেস।

 

বন্ধ করুন