বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সহায় উচ্চচাপ বলয়, পশ্চিমবঙ্গ থেকে ছিটকে গেল ঘূর্ণিঝড় ইয়াস
ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের সম্ভাব্য গতিপথ।
ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের সম্ভাব্য গতিপথ।

সহায় উচ্চচাপ বলয়, পশ্চিমবঙ্গ থেকে ছিটকে গেল ঘূর্ণিঝড় ইয়াস

  • তিনি জানান, সপ্তাহখানেক আগে দক্ষিণ চিন সাগরের কাছে অবস্থান করছিল একটি উচ্চচাপ বলয়। গত ১ সপ্তাহে ক্রমশ সেটি পশ্চিম দিকে সরে এসেছে।

কথা ছিল আঘাত হানবে পশ্চিমবঙ্গে। সেই মতো প্রস্তুতিও সেরেছে প্রশাসন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে বাংলাকে রেহাই দিয়ে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের মুখ ঘুরে গিয়েছে ওড়িশার দিকে। হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছে রাজ্যের বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষ। স্বস্তি পেয়েছে সরকারও। কিন্তু কীভাবে বাংলা থেকে দূরে সরল ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের গতিপথ? 

প্রাথমিকভাবে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস পশ্চিমবঙ্গেই আঘাত হানতে চলেছে বলে অনুমান করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু দিন যত গড়িয়েছে তত পশ্চিমে সরেছে তার গতিপথ। শেষ পূর্বাভাস অনুসারে ওড়িশার চাঁদিপুর থেকে ধামড়ার মধ্যে ভূভাগ ছোঁবে ঝড়টি। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞ প্রসূন ঘোষ জানালেন, শেষ মুহূর্তে ঘূর্ণিঝড় পশ্চিমের দিকে সরে যাওয়ার পিছনে রয়েছে উচ্চচাপ বলয়। 

তিনি জানান, সপ্তাহখানেক আগে দক্ষিণ চিন সাগরের কাছে অবস্থান করছিল একটি উচ্চচাপ বলয়। গত ১ সপ্তাহে ক্রমশ সেটি পশ্চিম দিকে সরে এসেছে। বর্তমানে মায়ানমার ও সংলগ্ন চিনের ওপর অবস্থান করছে উচ্চচাপ ক্ষেত্রটি। আর উচ্চচাপ বলয় যত পশ্চিমে সরেছে একই সঙ্গে সরেছে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের গতিপথ। উচ্চচাপ বলয়টি যে এত দ্রুত পশ্চিমে সরতে পারে তা প্রাথমিক ভাবে অনুমান করতে পারেননি আবহাওয়াবিদরা। তাই প্রথমে ইয়াস পশ্চিমবঙ্গে আঘাত হানবে বলে মনে করা হলেও এখন তা সরে গিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সীমানা থেকে অন্তত ১০০ কিলোমিটার দূরে। যার ফলে পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর ছাড়া ঝড়ের বড়সড় প্রভাব পশ্চিমবঙ্গ এড়িয়ে যাবে বলে অনুমান। 

 

বন্ধ করুন