বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > চার পুরসভা নির্বাচন পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন, জনস্বার্থ মামলা কলকাতা হাইকোর্টে
কলকাতা হাইকোর্ট (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
কলকাতা হাইকোর্ট (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

চার পুরসভা নির্বাচন পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন, জনস্বার্থ মামলা কলকাতা হাইকোর্টে

  • এই জনস্বার্থ মামলা বেশ চাপে ফেলে দিল তাঁদের বলে মনে করা হচ্ছে।

ইতিমধ্যেই গঙ্গাসাগর মেলা নিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে। এবার আসন্ন চারটি পুরসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন জানিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হল কলকাতা হাইকোর্টে। আজ, বুধবার কলকাতা হাইকোর্টে সমাজকর্মী বিমল ভট্টাচার্য এই জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছেন। আর এই মামলাটি করার অনুমতি দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব ও বিচারপতি কেসাং ডোমা ভুটিয়ার ডিভিশন বেঞ্চ। তাতেই আশঙ্কার মেঘ দেখা দিয়েছে।

রাজ্যজুড়ে করোনাভাইরাস রক্তচক্ষু দেখাচ্ছে। মঙ্গলবার রাজ্যের ৯ হাজারেরও বেশি মানুষ এই সংক্রমণে আক্রান্ত হয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে পুরসভার নির্বাচন হলে আরও মানুষ আক্রান্ত হয়ে পড়বেন। তাই পরিস্থিতির উন্নতি ঘটলে তবেই পুরসভা নির্বাচন করা হোক বলে আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। রাজ্য নির্বাচন কমিশন এখন নিরাপত্তা নিয়ে বৈঠক করতে চলেছে। তখন এই জনস্বার্থ মামলা বেশ চাপে ফেলে দিল তাঁদের বলে মনে করা হচ্ছে।

এই অবস্থায় পুরসভা নির্বাচন হলে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হতে পারে বলে বিমলবাবু জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছেন। আর তা নিয়ে সিঁদুরে মেঘ দেখতে শুরু করেছেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনের কর্তারা। কারণ যদি কলকাতা হাইকোর্ট এই চার পুরসভার নির্বাচন পিছিয়ে দেয় তাহলে বাকি নির্বাচনও পিছিয়ে যাতে পারে।

কলকাতা পুরসভা নির্বাচনের সময় পরিস্থিতি অনুকূল ছিল। কিন্তু আসন্ন চার পুরসভা নির্বাচনের সময় করোনাভাইরাস মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। আগামী ২২ জানুয়ারি চার পুরসভার নির্বাচনের দিনক্ষণ চূড়ান্ত করেছিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। কিন্তু এই জনস্বার্থ মামলার জেরে তা শেষ পর্যন্ত হয় কিনা সেটাই দেখার। ১৯ ডিসেম্বর কলকাতা পুর নির্বাচনের সময় করোনার ভয়াবহতা এই হারে বৃদ্ধি পায়নি। বহু মানুষকে নিয়ে রমরমিয়েই চলেছিল নির্বাচনী প্রচারও। তবে পুরসভা নির্বাচন উপলক্ষ্যে কোভিড বিধি লঙ্ঘিত হলে সভা বাতিল, জরিমানার মতো শাস্তির ব্যবস্থা রয়েছে।

বন্ধ করুন