বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Vi কাস্টমার কেয়ারের নামে ফর্ম পূরণ, ফোন ক্লোন করে হাতানো হল ব্যক্তির টাকা
VI-এর কাস্টমার কেয়ারের নামে প্রতারণা, ম্যাসেজ পাঠিয়ে উধাও গ্রাহকের লক্ষাধিক টাকা! (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
VI-এর কাস্টমার কেয়ারের নামে প্রতারণা, ম্যাসেজ পাঠিয়ে উধাও গ্রাহকের লক্ষাধিক টাকা! (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

Vi কাস্টমার কেয়ারের নামে ফর্ম পূরণ, ফোন ক্লোন করে হাতানো হল ব্যক্তির টাকা

  •  ১লক্ষ ১৭ হাজার টাকা ব্যাঙ্ক থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে 

VI-এর কাস্টমার কেয়ারের নামে গ্রাহককে মেসেজ পাঠিয়ে অনলাইন প্রতারণার অভিযোগ। শহরে আবারও ব্যাঙ্ক প্রতারণার শিকার হলেন গড়ফা এলাকার এক বাসিন্দা। লক্ষাধিক টাকা উধাও হয়ে গেল ওই গ্রাহকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে। গড়ফা থানা ও লালবাজারের গুন্ডাদমন শাখার দ্বারস্থ হয়েছেন প্রতারিত ওই ব্যক্তি।

 কীভাবে খোয়া গেল ওই ব্যক্তির টাকা ?

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে , প্রতারিত ওই ব্যক্তির নাম সুদীপ্ত গোস্বামী। গড়ফা থানা এলাকার বাসিন্দা তিনি। পুলিশে নিজের অভিযোগে ওই ব্যক্তি জানিয়েছেন, কাস্টমার কেয়ার থেকে প্রথমে তাঁর কাছে একটি মেসেজ আসে। দাবি করা হয়, ভোডাফোন-আইডিয়ার কাস্টমার থেকে মেসেজে করা হয়েছে।

সেই মেসেজে সুদীপ্ত দেখেন, তাঁকে ব্যাঙ্কের কেওয়াইসি আপডেট করতে বলা হয়েছে। এরপর বুধবার সকাল ১১ টা নাগাদ ওই নম্বর থেকে তাঁর কাছে একটা ফোন আছে। সেখানে তাঁকে অপরিচিত এক ব্যক্তি নিজেকে ভোডাফোন কাস্টমার কেয়ার এগজিকিউটিভ হিসেবে পরিচয় দেয়। তারপর তাঁকে মোবাইলের পোস্ট পেড কানেকশনের কেওয়াইসি আপডেট করতে বলা হয়।

এরপর ওই অপরিচিত নম্বর থেকে সুদীপ্তের মোবাইলে একটি লিঙ্ক পাঠানো হয়। ওই ব্যক্তি সুদীপ্তকে জানায়, লিঙ্কের মধ্যে দেওয়া ফর্ম পূরণ করে তাদের ফেরত পাঠাতে হবে। কাস্টমার কেয়ারের পরিচয় দেওয়া ওই ব্যক্তির কথা মতো ওই লিঙ্ক ক্লিক করতেই একটি পেজ তাঁর মোবাইলে খুলে যায়। সেখানে সুদীপ্ত দেখেন ,তার মধ্যে সত্যিই একটি ফর্ম রয়েছে। সেখানে তিনি তাঁর নাম, ফোন নম্বর সহ ব্যক্তিগত ডিটেলস লিখে দেন। তার পরেই তিনি দেখেন , ওই লিঙ্কের মধ্যে একটি পেমেন্ট অপশন ফুটে ওঠেছে। সেখানে তাঁকে ১৩ টাকা ৯০ পয়সা জমা করতে বলা হয়।

সুদীপ্তের অভিযোগ, তিনি ওই টাকা ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিংয়ের মাধ্যমে পাঠিয়েছিলেন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁর স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার অ্যাকাউন্ট থেকে পাঠানো মেসেজে তিনি জানতে পারেন, তাঁর পাসওয়ার্ড বদলে ফেলা হয়েছে। তিনি মোবাইল ঘেঁটে দেখেন, সেখানে তাঁর অজান্তেই কখন কুইক সাপোর্ট নামের একটি সফটওয়ার ডাউনলোড হয়ে গিয়েছে। এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালুও হয়ে যায়। এর মাধ্যমে তাঁর মোবাইল ক্লোন করে সমস্ত তথ্য হাতিয়ে নেয় প্রতারকেরা। কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ১ লক্ষ ১৭ হাজার টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে। প্রতারণার শিকার হয়েছেন বুঝতে পেরে এরপর তিনি গড়ফা থানার দ্বারস্থ হন। 

বন্ধ করুন