ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় বিক্ষোভ এমআর বাঙুরের কর্মীদের

  • যদিও হাসপাতালের অন্দরমহল থেকে খবর, এমআর বাঙুর হাসপাতালে করোনার চিকিৎসা হবে শুনেই স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে সংক্রমণের আতঙ্ক ছড়াতে শুরু করেন কয়েকজন জুনিয়র ডাক্তার।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার পর্যাপ্ত পরিকাঠামো নেই। অথচ হাসপাতালে চলছে করোনার চিকিৎসা। যার ফলে চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এই অভিযোগে শুক্রবার এমআর বাঙুর হাসপাতালের সুপারের ঘর ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখালেন স্বাস্থ্যকর্মী ও নার্সদের একাংশ। সকাল ১০.৩০ মিনিট থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলে বিক্ষোভ।

স্বাস্থ্যকর্মী ও নার্সদের একাংশের দাবি, হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা হলে তাদের সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাছাড়া হাসপাতালে পর্যাপ্ত পিপিই নেই বলে দাবি তাঁদের।

বাঙুর হাসপাতালের নবনির্মিত ভবনে চালু হয়েছে করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ড। নার্সদের একাংশের দাবি, নার্সদের ঘুরিয়ে ফিরিয়ে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ডিউটি থাকায় পুরনো ভবনে সাধারণ রোগীদের সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকছে। ফলে ২ ভবনের জন্য নার্সদের দায়িত্ব নির্দিষ্ট করা হোক।

যদিও হাসপাতালের অন্দরমহল থেকে খবর, এমআর বাঙুর হাসপাতালে করোনার চিকিৎসা হবে শুনেই স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে সংক্রমণের আতঙ্ক ছড়াতে শুরু করেন কয়েকজন জুনিয়র ডাক্তার। তার জেরেই এদিন বিক্ষোভ দেখিয়েছেন হাসপাতালের কর্মীরা।

সুপার শিশির নস্কর স্পষ্ট জানিয়ে দেন, স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশ মতোই চলবে হাসপাতাল। তবে স্বাস্থ্যকর্মীদের যাবতীয় আশঙ্কা নিয়ে পদক্ষেপ করা হবে। এর পর ওঠে বিক্ষোভ।

বন্ধ করুন