বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌গণতন্ত্র রক্ষায় হিংসা বন্ধ হওয়া জরুরি’‌, গান্ধীজয়ন্তীতেও রাজ্যকে খোঁচা ধনখড়ের
পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। ফাইল ছবি
পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। ফাইল ছবি

‘‌গণতন্ত্র রক্ষায় হিংসা বন্ধ হওয়া জরুরি’‌, গান্ধীজয়ন্তীতেও রাজ্যকে খোঁচা ধনখড়ের

  • ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে বারবার সরব হতে দেখা গিয়েছে রাজ্যপালকে। এমনকী বারবার নয়াদিল্লি ছুটে গিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন।

স্বাধীনতা দিবসেও রাজ্যকে আক্রমণ করে তিনি টুইট করেছিলেন। এবার বাদ গেল না গান্ধী জয়ন্তীও। আজ ১৫২ তম মহাত্মা গান্ধীর জন্মবার্ষিকী। এদিনও টুইট করেছেন তিনি। একদিকে জানিয়েছেন শ্রদ্ধা। অন্যদিকে ফের রাজ্য সরকারকে দিয়েছেন খোঁচা। হ্যাঁ, তিনি পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষার কথা উঠে এলো তাঁর টুইটে।

ঠিক কী টুইট করেছেন রাজ্যপাল?‌ শনিবার রাজ্যপাল টুইটের শুরুতেই গান্ধীজিকে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। তাঁর অহিংস আন্দোলনের কথাও তিনি তুলে ধরেছেন। তারপরই টুইটের শেষে একটি লাইনেই আবার রাজ্য সরকারের সঙ্গে সংঘাতের কথাই সামনে নিয়ে এসেছেন। এমনকী টুইটটি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ট্যাগ করে তিনি লিখেছেন, ‘‌গণতন্ত্র রক্ষায় হিংসা বন্ধ হওয়া জরুরি।’‌

ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে বারবার সরব হতে দেখা গিয়েছে রাজ্যপালকে। এমনকী বারবার নয়াদিল্লি ছুটে গিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন। এমনকী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শপথের পরই তাঁকে আক্রমণাত্মক টউইট করতে দেখা গিয়েছিল। সুতরাং রাজভবন–নবান্ন সংঘাত লেগেই রয়েছে। যা অব্যাহত রইল গান্ধী জয়ন্তীতেও।

উল্লেখ্য, গত বছর মহাত্মা গান্ধীর মৃত্যুদিনে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন রাজ্যপাল। বারাকপুরে গান্ধীঘাটে পৌঁছনোর পর পুলিশকে খবরের কাগজ পড়তে দেখেই বিরক্তি প্রকাশ করেছিলেন। এবার জন্মদিনে রাজ্যকে খোঁচা দিতে ছাড়লেন না। তবে তাতে পরিস্থিতি জটিল হবে বলেই মনে করছেন রাজ্যনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। একুশের নির্বাচনের পর অনেকটা সময়ই কেটে গিয়েছে। কিন্তু রাজ্যের সঙ্গে রাজ্যপালের সম্পর্কের কোনও উন্নতি হয়নি। এই টুইটই তাঁর প্রমাণ।

বন্ধ করুন