বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আশঙ্কাই সত্যি হল, পর্ণশ্রী খুনে গোয়েন্দাদের হাতে গ্রেফতার পরিবারেরই ২ সদস্য
ধৃত সন্দীপ ও সঞ্জয়।
ধৃত সন্দীপ ও সঞ্জয়।

আশঙ্কাই সত্যি হল, পর্ণশ্রী খুনে গোয়েন্দাদের হাতে গ্রেফতার পরিবারেরই ২ সদস্য

  • পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, জেরায় ধৃতরা জানিয়েছে, লকডাউনে আর্থিক অনটনে পড়েছিলেন ২ ভাই। বাজারে প্রচুর দেনা হয়ে গিয়েছিল। উলটো দিকে ছোট বেলা থেকেই সোনার গয়না কেনার সখ ছিল বোন সুস্মিতার।

বেহালার পর্ণশ্রীতে মা ও ছেলের হত্যাকাণ্ডের রহস্যের ওপর থেকে পর্দা উঠল। আশঙ্কা সত্যি করে খুনির খোঁজ মিলল পরিবারের ভিতরেই। জোড়া খুনে গ্রেফতার হলেন নিত সুস্মিতা মণ্ডলের ২ মাসতুতো ভাই। পুলিশের দাবি, দিদির গয়না ছিনতাই তাঁকে খুন করেন সন্দীপ ও সঞ্জয় দাস। রবিবার তাঁদের গ্রেফতার করেছে লালবাজারের গোয়েন্দা শাখা।

কলকাতা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার (অপরাধদমন) মুরলিধর শর্মা জানিয়েছেন, দিদির গয়না হস্তগত করতে বহুদিন ধরে পরিকল্পনা করছিল দুই ভাই। তার ওপরে লকডাউনে দুজনের আর্থিক অবস্থাও খারাপ হয়ে পড়েছিল। তাই দিদির গয়না ছিনতাই করতে তাঁকে খুন করে তারা। মাকে খুনের দৃশ্য দেখে ফেলায় খুন করা হয় ছেলেকেও।

গত সোমবার দুপুরে পর্ণশ্রীর আবাসনের তিন তলার ঘরে খুন হন সুস্মিতা মণ্ডল ও তাঁর নাবালক ছেলে। লালবাজারের তরফে জানানো হয়েছে, সোমবার বেলা ১২.৩০ মিনিট নাগাদ সেনপল্লির ওই ফ্ল্যাটে পৌঁছয় সন্দীপ (৩২) ও সঞ্জয় (৪৪)। এর পর খুন করে সুস্মিতাকে। তখন অনলাইনে ক্লাস করছিল সুস্মিতাদেবীর নাবালক ছেলে। মায়ের আর্তনাদে ক্লাস থেকে উঠে আসে সে। তখন তাকেও খুন করে আততায়ীরা। মহেশতলা থানা এলাকার বাসিন্দা ২ ভাই। রবিবার তাদের গ্রেফতার করেছে লালবাজার।

পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, জেরায় ধৃতরা জানিয়েছে, লকডাউনে আর্থিক অনটনে পড়েছিলেন ২ ভাই। বাজারে প্রচুর দেনা হয়ে গিয়েছিল। উলটো দিকে ছোট বেলা থেকেই সোনার গয়না কেনার সখ ছিল বোন সুস্মিতার। সেকথা জানত তারা। তাদের ধারণা ছিল সুস্মিতার বাড়িতে প্রচুর সোনা রয়েছে। তাই তাঁকে খুন করে সোনা হাতানোর পরিকল্পনা করে তারা।

বোনকে খুন করতে নিখুঁত পরিকল্পনা করেছিল ২ ভাই। জামাই কখন বাড়ির বাইরে থাকে। ছেলে কখন অনলাইন ক্লাস করে সব খোঁজ নিয়ে এসেছিল তারা।

 

বন্ধ করুন