বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মুখে লিউকোপ্লাস্টার লাগিয়ে হাসপাতাল থেকে বেরোলেন মদন মিত্র
মুখে টেপ লাগিয়ে শুক্রবার এভাবেই হাসপাতাল থেকে বেরোন মদন মিত্র।

মুখে লিউকোপ্লাস্টার লাগিয়ে হাসপাতাল থেকে বেরোলেন মদন মিত্র

  • গত বুধবার নজরুল মঞ্চে এক দলীয় সভায় দলে বিদ্রোহীদের মদতদাতাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের ইঙ্গিত দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেদিন রাতেই গলায় ব্যাথা নিয়ে SSKM হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ডে ভর্তি হন মদনবাবু।

স্বরতন্তুতে অস্ত্রোপচারের পর হাসপাতাল থেকে ছুটি পেলেন কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্র। আর বরাবরের মতো হাসপাতাল থেকে বেররোনর সময়ও সবার নজর কাড়লেন তিনি। মুখে লিউকোপ্লাস্টার লাগিয়ে হাতে কাগজ ও কলম নিয়ে এদিন হাসপাতাল থেকে বেরোতে দেখা যায় তাঁকে। কারণ আগামী ৯ দিন তাঁক কথা বলায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন চিকিৎসক।

গত বুধবার নজরুল মঞ্চে এক দলীয় সভায় দলে বিদ্রোহীদের মদতদাতাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের ইঙ্গিত দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেদিন রাতেই গলায় ব্যাথা নিয়ে SSKM হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ডে ভর্তি হন মদনবাবু। সাংবাদিকদের বলেন, কথা বললে কাকের মতো আওয়াজ বেরোচ্ছে। চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে জানান বিধায়কের স্বরতন্তুতে একটি পলিপ রয়েছে। বৃহস্পতিবার সেটিকে অস্ত্রোপচার করে নিরাময় করেন তাঁরা। শুক্রবার বেলায় তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছুটি দেওয়া হয়।

হাসপাতাল থেকে বেরনোর সময় মদন মিত্রের মুখে সাঁটা ছিল লিউকোপ্লাস্টার। তার ওপর লাল কালি দিয়ে চিকে দেওয়া ছিল। হাতে ছিল কাগজ ও কলম। সাংবাদিকদের লিখে মদনবাবু জানান, হাসপাতাল থেকে সোজা বিধানসভায় যাবেন তিনি। সঙ্গে জানান তাঁর ‘গলায় ব্যথা কিন্তু পায়ে সর্ষে’। কথা না বললেও নিজের কাজ চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছেন, বেশ কিছু দিন ধরে গলার পলিপ নিয়ে সমস্যায় ভুগছিলেন মদনবাবু। তবে এতদিন চিকিৎসকরা অস্ত্রোপচারে রাজি হননি।

 

বন্ধ করুন