বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > মাত্র ৩০ শতাংশ মানুষের মুখ্যমন্ত্রী মমতা, তর্পণে বাধা পেয়ে আক্রমণ কৈলাসের
বুধবার বাগবাজারে বাধা পাওয়ার পর কৈলাস বিজয়বর্গীয়
বুধবার বাগবাজারে বাধা পাওয়ার পর কৈলাস বিজয়বর্গীয়

মাত্র ৩০ শতাংশ মানুষের মুখ্যমন্ত্রী মমতা, তর্পণে বাধা পেয়ে আক্রমণ কৈলাসের

  • বুধবার বাগবাজার ঘাটে নিহত দলীয় কর্মীদের স্মৃতিতে তর্পণের আয়োজন করেছিল বিজেপি। মঙ্গলবার রাতেই জোর করে বিজেপির মঞ্চ খোলায় কলকাতা পুলিশ। বুধবার সকাল থেকে পুলিশকর্মীতে ছয়লাপ হয়ে যায় গোটা বাগবাজার ঘাট এলাকা।

কলকাতার বাগবাজারে বিজেপির তর্পণে পুলিশি বাধায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। বুধবার গোলাবাড়ি ঘাটে তর্পণ সেরে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন তিনি। বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হিন্দুবিরোধী। রাজ্যের মাত্র ৩০ শতাংশ মানুষের মুখ্যমন্ত্রী উনি।’

এদিন কৈলাস বলেন, ‘রাজ্যের ৭০ শতাংশ মানুষের অধিকার ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। এটা রাজ্যের ৩০ শতাংশ মানুষের সরকার। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শাসনে কি আমরা তর্পণও করতে পারব না?’

বুধবার বাগবাজার ঘাটে নিহত দলীয় কর্মীদের স্মৃতিতে তর্পণের আয়োজন করেছিল বিজেপি। মঙ্গলবার রাতেই জোর করে বিজেপির মঞ্চ খোলায় কলকাতা পুলিশ। বুধবার সকাল থেকে পুলিশকর্মীতে ছয়লাপ হয়ে যায় গোটা বাগবাজার ঘাট এলাকা। পুলিশের দবি, করোনা পরিস্থিতিতে কর্মসূচি আয়োজনের আগে কোনও অনুমতি নেয়নি বিজেপি।

এদিন মুকুল রায় বলেন, ‘করোনাকে অজুহাত করে বিজেপিকে আটকানো হচ্ছে। তর্পণ করতে পুলিশের অনুমতি লাগে একথা জীবনে কোনও দিন শুনিনি। ২০২১ এর ভোটে এই সরকারের বিদায় আসন্ন।’ বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন, ‘বিজেপিকে থামানো যাবে না। এই সরকারের গঙ্গাপ্রাপ্তি হবে।’

পুলিশের পাশে দাঁড়িয়েছে তৃণমূল। দলীয় সাংসদ সৌগত রায় বলেন, ‘ধর্মীয় অনুষ্ঠানকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছিল বিজেপি। পুলিশ সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং বজায় রাখতে তাদের রুখেছে।’

বন্ধ করুন