বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Calcutta High Court: বিবাহিতা মেয়েও পিতার পরিবারের সদস্য: রাজ্যের আবেদন খারিজ করে বলল কলকাতা হাইকোর্ট

Calcutta High Court: বিবাহিতা মেয়েও পিতার পরিবারের সদস্য: রাজ্যের আবেদন খারিজ করে বলল কলকাতা হাইকোর্ট

কলকাতা হাইকোর্ট। ফাইল ছবি (HT_PRINT)

রাজ্য সরকার তার আবেদন খারিজ করে দিয়েছিল। রাজ্যের শ্রম বিভাগের তরফে জানানো হয়েছিল, এই বিজ্ঞপ্তিতে বিবাহিতা মেয়েদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। রেখা যেহেতু বিবাহিতা তাই তার আবেদন খারিজ করা হয়েছে। ফলে চাকরির জন্য আবেদন করতে পারবেন না। উল্লেখ্য, রেখা বিবাহিতা হলেও বাবার মৃত্যুর পর মায়ের দেখাশোনা করেছেন।

বিবাহিতা মেয়েরা কি পিতার পরিবারের সদস্য নন? তা নিয়ে বিতর্ক দীর্ঘদিনের। সেই বিষয়টি স্পষ্ট করল কলকাতা হাইকোর্ট।  বিবাহিত মহিলাও যে তার পিতার পরিবারের সদস্য সেই বিষয়ে সিলমোহর দিল আদালত। রাজ্য সরকারের কাছে জমির ক্ষতিপূরণের দাবি সংক্রান্ত একটি মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের একক বেঞ্চ জানিয়েছিল বিবাহিতা মহিলা তার পিতার পরিবারের সদস্য। ডিভিশন বেঞ্চও একক বেঞ্চের সেই রায়কেই বহাল রাখল। এই মামলায় সরকার পক্ষের কেউ হাজির না হওয়ায় শুক্রবার বিচারপতি দেবাংশু বসাক ও বিচারপতি মহম্মদ শব্বর রশিদির ডিভিশন বেঞ্চ রাজ্যের আবেদন খারিজ করে দিয়েছে।

আরও পড়ুন: যৌন ইচ্ছাকে নিয়ন্ত্রণে রাখো, কিশোরীদের পরামর্শ দিয়ে সুপ্রিম রোষে কলকাতা হাইকোর্ট

হাইকোর্টে ক্ষতিপূরণের দাবিতে মামলা করেছিলেন রেখা পাল নামে এক মহিলা। তিনি বিবাহিতা। মামলা সূত্রে জানা গিয়েছে, বক্রেশ্বর তাপবিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য জমি রাজ্য অধিগ্রহণ করেছিল রাজ্য সরকার । ২০১২ সালের অক্টোবরে রাজ্যের শ্রম দফতরের তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছিল, যে পরিবারগুলির জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে তারা ক্ষতিপূরণের জন্য আবেদন জানাতে পারবেন। ওই প্রকল্পের জন্য রেখার বাবার জমিও অধিগ্রহণ করা হয়েছিল। তাই তিনিও ক্ষতিপূরণ হিসেবে চাকরির জন্য আবেদন জানিয়েছিলেন। কিন্তু, রাজ্য সরকার তার আবেদন খারিজ করে দিয়েছিল। রাজ্যের শ্রম বিভাগের তরফে জানানো হয়েছিল, এই বিজ্ঞপ্তিতে বিবাহিতা মেয়েদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। রেখা যেহেতু বিবাহিতা তাই তার আবেদন খারিজ করা হয়েছে। ফলে চাকরির জন্য আবেদন করতে পারবেন না। উল্লেখ্য, রেখা বিবাহিতা হলেও বাবার মৃত্যুর পর মায়ের দেখাশোনা করেছেন।

রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে ২০১৩ সালের কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন রেখা পাল। তার আইনজীবী আশিস কুমার চৌধুরী হাইকোর্টে রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তকে অসাংবিধানিক বলে উল্লেখ করেন। তিনি প্রশ্ন তুলেছিলেন যদি বিধবা বা বিবাহ বিচ্ছিন্না মহিলা তার পিতার পরিবারের সদস্য হতে পারেন তাহলে কেন একজন বিবাহিতা মহিলা তার পিতার পরিবারের সদস্য হতে পারবেন না? একই সঙ্গে তিনি কেন পৈতৃক সম্পত্তি পাবেন না? তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন আইনজীবী।

সেই সংক্রান্ত মামলায় বিচারপতি অশোক কুমার দাস অধিকারী বলেছিলেন, ‘শুধুমাত্র লিঙ্গের ভিত্তিতে বিবাহিত কন্যা এবং বিবাহিত পুত্রের মধ্যে পার্থক্য বা বৈষম্য তৈরি করা যায় না।’  এরপরে কলকাতা হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চ ওই মহিলাকে তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছিল। তবে সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে যায় রাজ্য সরকার। তাই ১০ বছর ধরে মামলা চলার পর শুক্রবার দুই বিচারপতির বেঞ্চ রাজ্য সরকারের আবেদন খারিজ করে সিঙ্গেল বেঞ্চের রায়কেই বহাল রাখে। 

বাংলার মুখ খবর
বন্ধ করুন

Latest News

‘‌আমি দুঃখিত, বাবা’‌, দেরিতে পৌঁছনোয় পরীক্ষা দিতে না পেরে আত্মঘাতী ছাত্র রোহিতকে আমিই ভারতের অধিনায়ক করেছিলাম- হিটম্যানকে নেতা করার রহস্য ফাঁস করলেন সৌরভ মঙ্গলের কুম্ভে প্রবেশ, সমস্যা বাড়বে এই রাশির, হতে পারে অর্থ হানি, সতর্ক থাকুন 'স্ট্রাইক রেটও ভালো ছিল', 'স্লো' বাবরকে খোঁচা কিউয়ি প্রাক্তনীর, হাসি পাকিস্তানির শিয়ালদা লাইনে ১৬৪ লোকাল ট্রেন বাতিল স্রেফ শনিবারই! কোনগুলি? রইল সম্পূর্ণ তালিকা ‘আমার লক্ষ্মী…’, আঁকলেন, দিদির মঞ্চে স্বরচিত কবিতা পাঠ, মমতায় মুগ্ধ রচনা-ডোনারা আরামবাগ লোকসভা কেন্দ্রকে টার্গেট করল বিজেপি, নির্বাচনের পাটিগণিতে অঙ্ক কঠিন মাসের প্রথম দিন কেমন কাটবে? আজ রাতেই জেনে নিন ১ মার্চ শুক্রবারের রাশিফল পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিরাটের ছক্কায় নো-বল দিয়েছিলেন, অবসর নিচ্ছেন সেই আম্পায়ার চোটের ভান করেছিলেন শ্রেয়স? বিতর্কের মধ্যেই ফিটনেস নিয়ে 'বোমা' KKR কোচের

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.