বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > পঞ্চায়েতমন্ত্রীর দরাজ শংসাপত্র পেলেন শিক্ষামন্ত্রী, যোগ্য মন্ত্রীর তকমা যোগ
শিক্ষক দিবসের সরকারি অনুষ্ঠান মঞ্চ
শিক্ষক দিবসের সরকারি অনুষ্ঠান মঞ্চ

পঞ্চায়েতমন্ত্রীর দরাজ শংসাপত্র পেলেন শিক্ষামন্ত্রী, যোগ্য মন্ত্রীর তকমা যোগ

  • সম্প্রতি‌ শিক্ষা দফতরের বাইরে শিক্ষিকাদের বিষপান করার ঘটনা রাজ্যে চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছিল।

বিরোধীরা শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর যতই সমালোচনা করুন, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ কিন্তু তাঁকেই ‘‌যোগ্য মন্ত্রী’‌ বলে শংসাপত্র দিয়েছেন। আর এই দরাজ শংসাপত্র তিনি পেয়েছেন পঞ্চায়েরমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের কাছ থেকে। সুতরাং বিষয়টি যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ পঞ্চায়েতমন্ত্রী বারবার নিজের কাজের জন্য কেন্দ্রের শংসাপত্র পেয়েছেন। সুতরাং তাঁর শংসাপত্রের গুরুত্বও বেশি। শিক্ষক দিবসের সরকারি অনুষ্ঠান মঞ্চে গুণীজনের নক্ষত্র সমারোহে উপস্থিত ছিলেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়, ব্রাত্য বসু এবং শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। সেখানেই ব্রাত্য বসু সম্পর্কে ভূয়সী প্রশংসা ভেসে এলো সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের কাছ থেকে।

এই অনুষ্ঠানে পঞ্চায়েত, শিক্ষা, কৃষি এবং শিল্পমন্ত্রীও ছিলেন। সেখানেই শিক্ষামন্ত্রীকে সটান যোগ্য মন্ত্রী বলে শংসাপত্র দিলেন পোড় খাওয়া রাজনীতিবিদ সুব্রত মুখোপাধ্যায়। পাশে ব্রাত্য বসু তখন উপস্থিত। হঠাৎ এমন প্রশংসায় কেন? এই প্রশ্নের অবশ্য উত্তর দিয়েছেন সুব্রতবাবু নিজেই। তিনি বলেন, ‘ব্রাত্য বসু সর্বক্ষণ পড়াশোনা, নাটক, সংস্কৃতি নিয়ে চর্চায় থাকা একজন মানুষ, তাই সেই যোগ্য শিক্ষামন্ত্রী।’‌

উল্লেখ্য, সম্প্রতি‌ শিক্ষা দফতরের বাইরে শিক্ষিকাদের বিষপান করার ঘটনা রাজ্যে চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছিল। এসএসকে, এমএসকে, চুক্তিভিত্তিক শিক্ষকদের আন্দোলন শিক্ষা দফতরের বিরুদ্ধে। প্রাথমিক বোর্ড, স্কুল সার্ভিস কমিশনের কিছু নিয়োগ সুপারিশ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে খোদ কলকাতা হাইকোর্ট। তখন শিক্ষামন্ত্রীকে যোগ্য মন্ত্রী বলে শংসাপত্র দেওয়া অবশ্যই চর্চার দাবি রাখে।

আর এদিন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু জানান, বরাবর শ্রদ্ধার মানুষ সুব্রত মুখোপাধ্যায়। শিক্ষক দিবসে এই পারস্পরিক সম্মান যেন ছাত্র–শিক্ষকের এক অমোঘ টান। একজনের আর একজনের কাজের প্রতি শ্রদ্ধা, ভালোবাসা থাকলে তবেই সেরা কাজটা বেরিয়ে আসে। এমন বার্তাই হয়তো দিলেন রাজ্যের দুই গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী। শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু এদিন জানান, কলকাতা হাইকোর্টের পরামর্শ মেনে নিয়োগ প্রক্রিয়া এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। অভিযোগ জানানোর জন্য গ্রিভান্স সেল তৈরি হয়েছে। নিয়োগ প্রক্রিয়া আটকে দেওয়ার আন্দোলন না করার আবেদন করেছেন তিনি।

বন্ধ করুন