বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সুরাপ্রেমীদের জন্য সুখবর, বিধিনিষেধ থাকছে না মদ বিক্রিতে, খোলা থাকবে পানশালা
মদ বিক্রিতে কোনও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়নি। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য বিপিন কুমার/হিন্দুস্তান টাইমস)
মদ বিক্রিতে কোনও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়নি। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য বিপিন কুমার/হিন্দুস্তান টাইমস)

সুরাপ্রেমীদের জন্য সুখবর, বিধিনিষেধ থাকছে না মদ বিক্রিতে, খোলা থাকবে পানশালা

  • এতকিছু বিধিনিষেধ জারি করা হলেও মদ বিক্রিতে কিন্তু কোনও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়নি।

লাফিয়ে বাড়ছে করোনাভাইরাস। তাই আগেই বাতিল করে দেওয়া হয়েছিল ছাত্র দিবস সপ্তাহ থেকে দুয়ারে সরকার কর্মসূচি। আজ সবকিছু নিযে রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী নবান্নে বৈঠকে বসেন। এই বৈঠকের পর স্কুল–কলেজ–বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের নির্দেশ জারি করেছে নবান্ন। এমনকী সন্ধ্যেবেলা থেকে লোকাল ট্রেন চলবে না। এতকিছু বিধিনিষেধ জারি করা হলেও মদ বিক্রিতে কিন্তু কোনও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়নি। ফলে মদের দোকান খোলা থাকছে।

আজ, রবিবার রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী জানিয়েছেন, আগামী ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত কোন ক্ষেত্রে বন্ধ থাকবে এবং কোন ক্ষেত্র খো‌লা রাখা থাকবে। তবে সুরাপ্রেমীদের জন্য সুখবরই রয়েছে। কারণ মদের দোকান সম্পর্কে আলাদা করে কিছু বলা হয়নি। বরং রেস্তোরাঁ–বার খোলা থাকবে। তবে ৫০ শতাংশ লোকজন নিয়ে খোলা রাখা যাবে।

মদের দোকান নিজস্ব নিয়মে খোলা থাকবে। সেখানে কোনও সময় বেঁধে দেওয়া হয়নি। বার–রেস্তোরাঁ রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে। ফলে মদ্যপানের ক্ষেত্রে কোনও বিধিনিষেধ বাধা হচ্ছে না। আর দোকান– বাজার সব কিছু রাত ১০টায় বন্ধ করে দিতে হবে। কারণ রাত ১০টা থেকেই শুরু হয়ে যাবে নৈশ কার্ফু। তখন অবশ্য মদের দোকানও বন্ধ করে দিতে হবে।

এখানে বলা হয়েছে, শেষ সময় পর্যন্ত পানশালা বা রেস্তরাঁয় কাটানো যাবে না। কারণ, রাত ১০টা থেকে নৈশ কার্ফু শুরু হয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে গুটিয়ে ফেলতে হবে সবকিছু। কোভিড–বিধি মেনেই পানশালা, রেস্তোরাঁয় যেতে হবে। এই বিধিনিষেধ অবশ্য ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত। তারপর আবার নয়া নির্দেশিকা জারি করা হবে।

বন্ধ করুন