বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Partha Chatterjee: পড়ুয়া বন্দিদের খোঁজ নিলেন জেলবন্দি পার্থ, অন্য মেজাজে ধরা দিলেন প্রাক্তন মন্ত্রী
পার্থ চট্টোপাধ্যায় (HT_PRINT)

Partha Chatterjee: পড়ুয়া বন্দিদের খোঁজ নিলেন জেলবন্দি পার্থ, অন্য মেজাজে ধরা দিলেন প্রাক্তন মন্ত্রী

  • আলিপুর মহিলা সংশোধনাগারে অবশ্য অর্পিতা মুখোপাধ্যায় অনেকটাই চনমনে ছিলেন। এখানেই একসময় ছিলেন দেবযানী মুখোপাধ্যায়। এদিন অর্পিতাকে সেই সেলে স্থানান্তর করা হয়। সেলে টিভির বায়না করলেও, অর্পিতার সেই আব্দারে আমল দেয়নি জেল কর্তৃপক্ষ।

পাঁচদিনে অনেকটা জেল–জীবন মানিয়ে নিয়েছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। অসুবিধা সত্ত্বেও এই পথেই হাঁটতে শুরু করেছেন প্রাক্তন মন্ত্রী। তাই এখন তিনি জেলের মধ্যেই পায়চারি করতে শুরু করেছেন নিয়মিত। এবার তা করতে গিয়ে পুড়য়া সহ–বন্দিদের খোঁজখবর নিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এতদিন তিনি কারও সঙ্গে কথা বলছিলেন না। এখন তিনি শুরু করলেন কথাবার্তা। তাঁদের বইপত্র উল্টেপাল্টে দেখলেন। প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারে এই ঘটনাই ঘটেছে বলে সূত্রের খবর।

ঠিক কী ঘটেছে প্রেসিডেন্সি জেলে?‌ জেল সূত্রে খবর, এদিন সেলে বসে প্রাক্তন মন্ত্রী পড়াশোনায় মগ্ন ছিলেন। সকালে চা–বিস্কুট ছাড়াও তিনি খান শশা–মুড়ি। দুপুরে তাঁর খাবারের তালিকায় অন্য বন্দিদের মতো ছিল ভাত, ডাল, আলু ভাজা ও চিকেন। তারপর পার্থবাবুর সেলে দুই দফায় জেল হাসপাতাল চিকিৎসকরা এসে তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন। পা–কোমরে ব্যাথা অনুভব করছেন তিনি। তাই চিকিৎসকরা সেই মতো তাঁর সেলে ওষুধ পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেন।

তারপর ঠিক কী ঘটল?‌ সূত্রের খবর, চিকিৎসকরা চলে যাওয়ার পরে তিনি পায়চারি করছিলেন। তারপর একটু এগিয়ে গেলেন। সেখানে কয়েকজন পড়ুয়া বন্দি ছিল। যারা নানা অপরাধে আজ জেলে বন্দি হয়ে রয়েছে। সেখানে গিয়ে হাজির হলেন পার্থ। জিজ্ঞাসা করলেন অপরাধ কী?‌ যে যা করেছে তা তুলে ধরল প্রাক্তন মন্ত্রীর সামনে। তারপর তাদের কাছে থাকা বইপত্র তুলে দেখলেন। আর বললেন, ‘‌পড়াশোনার কোনও বিকল্প নেই।’‌ তারপর মাথা নীচু করে চলে গেলেন।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ আলিপুর মহিলা সংশোধনাগারে অবশ্য অর্পিতা মুখোপাধ্যায় অনেকটাই চনমনে ছিলেন। এখানেই একসময় ছিলেন দেবযানী মুখোপাধ্যায়। এদিন অর্পিতাকে সেই সেলে স্থানান্তর করা হয়। সেলে টিভির বায়না করলেও, অর্পিতার সেই আব্দারে আমল দেয়নি জেল কর্তৃপক্ষ। দুপুরের জেলে তাঁকে দেওয়া হয় ভাত, ডাল, পটলের তরকারি এবং মাছের ঝোল। বিকেলে খান ক্যান্টিন থেকে আনা ঝালমুড়ি।

বন্ধ করুন