কলকাতার রাস্তায় আইনভঙ্গকারীদের মুখোমুখি পুলিশ। নগরপালের প্রকাশিত ছবি।
কলকাতার রাস্তায় আইনভঙ্গকারীদের মুখোমুখি পুলিশ। নগরপালের প্রকাশিত ছবি।

লকডাউনে রাস্তায় বেরিয়ে ধরা পড়লে বাইক - গাড়ি জমা দিয়ে আসতে হতে পারে পুলিশকে

অনুজ শর্মা আরও জানিয়েছেন বুধবার রাত থেকে কলকাতা জুড়ে ১৫৫টি মামলা হয়েছেয গ্রেফতার করা হয়েছে ৬৯৯ জনকে।

অকারণে লকডাউন ভেঙে রাস্তায় বেরোলেই এবার কড়া পদক্ষেপের হুঁশিয়ারি পুলিশের। কলকাতা পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, এসব ক্ষেত্রে রাস্তায় বেরনোর প্রয়োজনীয়তা প্রমাণ না করতে পারলে বাজেয়াপ্ত হবে গাড়ি – মোটরসাইকেল। অকারণে গাড়ি নিয়ে রাস্তায় ঘোরাঘুরি করায় বৃহস্পতিবার কলকাতায় ৫১টি দুই, তিন ও চার চাকার গাড়ি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নগরপাল অনুজ শর্মা।

টুইটে কলকাতার পুলিশ কমিশনার ফের একবার নাগরিকদের কাছে লকডাউন মেনে চলার আবেদন জানিয়ে বলেছেন, ‘বেলা ১১টা পর্যন্ত ৫১টি গাড়ি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। দণ্ডবিধির ১৮৮ ধারায় দায়ের হয়েছে মামবা। কলকাতা পুলিশকে আমি কড়া আইনি পদক্ষেপ করতে নির্দেশ দিয়েছি।’

অনুজ শর্মা আরও জানিয়েছেন বুধবার রাত থেকে কলকাতা জুড়ে ১৫৫টি মামলা হয়েছেয গ্রেফতার করা হয়েছে ৬৯৯ জনকে।



কলকাতা পুলিশ সূত্রের খবর, লকডাউনের নামে বাড়াবাড়ি করায় গত সপ্তাহে ৭ জন পুলিশকর্মীকে ক্লোজ করা হয়েছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এতেই পুলিশের মনোবলে ভাঙন ধরে। শাস্তির আশঙ্কায় লকডাউনে ঢিলে দিতে শুরু করেন তাঁরা। তার জেরে গত কয়েকদিনে কলকাতার রাস্তায় গাড়ির সংখ্যে বেড়ে যায়। যার ফলে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা বাড়ে।

গত মঙ্গলবার লালবাজারে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে নগরপালের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। এর পর মমতা বলেন ‘কড়াকড়ি করুন, বাড়াবাড়ি নয়।’ তার পর ফের ময়দানে নামে পুলিশ।



বন্ধ করুন