বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > দমদমে চরমে BJP-র গোষ্ঠীকোন্দল, পার্টি অফিসে সবুজ রং করলেন দলীয় কর্মীরাই
পার্টি অফিসের দেওয়ালে দলীয় প্রতীকের ওপর রঙের পোচ দিচ্ছেন এক বিক্ষুব্ধ বিজেপি কর্মী।
পার্টি অফিসের দেওয়ালে দলীয় প্রতীকের ওপর রঙের পোচ দিচ্ছেন এক বিক্ষুব্ধ বিজেপি কর্মী।

দমদমে চরমে BJP-র গোষ্ঠীকোন্দল, পার্টি অফিসে সবুজ রং করলেন দলীয় কর্মীরাই

  • বিক্ষোভকারীদের দাবি, অটলবিহারী বাজপেয়ী, লালকৃষ্ণ আদবাণী, তপস শিকদারের সঙ্গে রাজনীতি করে এলেও দলে গুরুত্ব মিলছে না। উলটে দলে গুরুত্ব পাচ্ছে অন্য দল থেকে আসা বেনো জল।

সংগঠনের বহর যত বাড়ছে পশ্চিমবঙ্গে ততই বাড়ছে বিজেপির গোষ্ঠীকোন্দল। ক্ষমতায় এলে ক্ষীর খাবে কে, তা নিয়ে বিবাদ জেলা থেকে পৌঁছে শহরেও। তবে বুধবার কলকাতা লাগোয়া দমদমের বাসিন্দারা যে ছবির সাক্ষী রইলেন তা এক কথায় অভূতপূর্ব। অভিযোগ, গোষ্ঠীদ্বন্দের জেরে দলীয় পার্টি অফিসে তালা ঝুলিয়ে দলীয় প্রতীকের ওপর সবুজ রং করে দিলেন বিজেপি কর্মীরাই। 

বুধবার সকালে ঘটনাটি ঘটে দমদমের ছাতাকল এলাকায়। অভিযোগ, নিজের অনুগামীদের দলীয় পদে বসাচ্ছেন জেলা সভাপতি কিশোর কর। দলের পুরনো কর্মীরা গুরুত্ব পাচ্ছেন না বলে দাবি তাঁদের। এই অভিযোগে বুধবার সকালে ছাতাকল এলাকায় দলের বহু পুরনো পার্টি অফিসটিতে তালা ঝুলিয়ে দলীয় প্রতীকের ওপর সবুজ রং করে দেন বিক্ষোভকারীরা। 

বিক্ষোভকারীদের দাবি, অটলবিহারী বাজপেয়ী, লালকৃষ্ণ আদবাণী, তপস শিকদারের সঙ্গে রাজনীতি করে এলেও দলে গুরুত্ব মিলছে না। উলটে দলে গুরুত্ব পাচ্ছে অন্য দল থেকে আসা বেনো জল। টাকার বিনিময়ে দলীয় পদ বিক্রি হচ্ছে। সূত্রের খবর, বিক্ষোভকারীরা বিজেপি নেতা তথাগত রায়ের অনুগামী। গত মাস খানেক ধরে যিনি সক্রিয় রাজনীতিতে ফেরার চেষ্টায় রয়েছেন।

ঘটনার কথা শুনে কিশোর কর বলেন, ‘যাঁরা কমিটিতে ছিলেন তাঁরাই আছেন। টাকা পয়সার লেনদেনের অভিযোগ যে কেউ করতে পারে। বিক্ষোভকারীদের অভাব অভিযোগ শুনব। দলীয় শৃঙ্খলা মেনে সবার আচরণ করা উচিত। আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে উচ্চতর নেতৃত্বকে জানাতে পারতেন। কিন্তু তা না করে পার্টি অফিস বন্ধ করতে গেল কেন?’ 

 

বন্ধ করুন