বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > 'কুমিরের কান্না,' CESC-কে রক্ষার কৌশল, মোদীকে চিঠি নিয়ে মমতাকে তোপ শুভেন্দুর
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী

'কুমিরের কান্না,' CESC-কে রক্ষার কৌশল, মোদীকে চিঠি নিয়ে মমতাকে তোপ শুভেন্দুর

বিলটির বিতর্কিত দিকগুলিকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

‌কেন্দ্রের প্রস্তাবিত বিদ্যুৎ সংশোধনী বিলের বিরোধিতা করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার এই বিলের প্রসঙ্গ তুলে রাজ্য সরকারকে পাল্টা আক্রমণ শানালেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

টুইটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘‌পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর বিদ্যুৎ সংশোধনী বিল ২০২০–এর বিরোধিতা আসলে কুমিরের কান্না। আসলে কলকাতার একজন বেসরকারি সংস্থা (পড়ুন সিএসএসসি), যারা সবচেয়ে বেশি বিদ্যুতের মাশুল নেয়, তাদের রক্ষা করার কৌশল। ব্যক্তিগত উদ্দেশ্যেই এই বিরোধিতা। প্রতিযোগিতা করতে হলে বিদ্যুতের মাশুল কমানোর দিকে করুন।’‌

প্রস্তাবিত বিদ্যুৎ সংশোধনী বিলের খসড়ায় বলা হয়েছে, বিদ্যুৎ বিলের পুরো টাকাটাই প্রথমে গ্রাহকদের দিয়ে দিতে হবে। পরে ভর্তুকির টাকা তাঁরা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ফেরত পেয়ে যাবেন। এখানেই আশঙ্কা করা হচ্ছে, অনেক গ্রাহকই বিদ্যুৎ বিল মেটানোর জন্য টাকা দিতে পারবেন না। এই পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে জানিয়েছেন, এই নিয়ম কার্যকর হলে অনেক গরিব মানুষের বিদ্যুৎ সংযোগ কাটা যাবে। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী আপত্তি তুলেছেন, বিদ্যুৎ যুগ্ম তালিকাভুক্ত বিষয়। এই সংশোধনী বিল আইনে কার্যকর হলে বিদ্যুৎ আর রাজ্যের নিয়ন্ত্রণে থাকবে না। এটা যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর পরিপন্থী। এর আগে গত বছর ১২ জুন বিলটির বিতর্কিত দিকগুলিকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন