বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > রাজ্য সরকারের অনুপ্রেরণায় নবান্ন স্পনসরড করোনার তৃতীয় ঢেউ চলছে পশ্চিমবঙ্গে: শমীক
রবিবার সাংবাদিক বৈঠকে শমীক ভট্টাচার্য
রবিবার সাংবাদিক বৈঠকে শমীক ভট্টাচার্য

রাজ্য সরকারের অনুপ্রেরণায় নবান্ন স্পনসরড করোনার তৃতীয় ঢেউ চলছে পশ্চিমবঙ্গে: শমীক

  • গণপরিবহনে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কাও এদিন প্রকাশ করেন শমীকবাবু। তিনি বলেন, ‘লোকাল ট্রেন কমলে বাসে ভিড় বাড়বে। সরকারি বাসের সংখ্যা কম।

রাজ্য সরকারের অনুপ্রেরণায় ও নবান্ন স্পনসরড তৃতীয় ঢেউ পশ্চিমবঙ্গে চলছে। রবিবার রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে এভাবেই মমতার সরকারকে আক্রমণ করলেন বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য। তবে রাজ্যে বিধিনিষেধ আরোপ নিয়ে বিজেপির অবস্থান স্পষ্ট করেননি তিনি। গোটা বিষয়টিই রাজ্য সরকারের ওপরে ছেড়েছেন তিনি।

এদিন শমীকবাবু বলেন, ‘নবান্ন স্পনসরড কোভিডের থার্ড ওয়েভ আজকে রাজ্যের মানুষ দেখতে পাচ্ছেন। কেন্দ্রীয় সরকারের সতর্কতা, রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য দফতরের সতর্কতা, বিশেষজ্ঞদের সতর্কতা উপেক্ষা করে আমরা যে চিত্র দেখলাম গত দু’তিন দিনে। পার্কস্ট্রিটের জনপ্লাবন দেখে মনে হচ্ছিল যিশুখ্রিস্ট ওখানেই ক্রুশবিদ্ধ হয়েছিলেন। কোথাও কোনও বিধিনিষেধ নেই। ২৫ ডিসেম্বর, ৩১ ডিসেম্বর ও বিভিন্ন জায়গায় শাসকদল পরিচালিত মেলা ও খেলা প্রমাণ করে দিল এই মুহূর্তে করোনা রাজ্য সরকারের অগ্রাধিকার নয়। এই সরকার আগেও করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আন্তরিক ছিল না।’

গণপরিবহনে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কাও এদিন প্রকাশ করেন শমীকবাবু। তিনি বলেন, ‘লোকাল ট্রেন কমলে বাসে ভিড় বাড়বে। সরকারি বাসের সংখ্যা কম। বহু বেসরকারি বাস বসে রয়েছে। রাজ্য সরকারের তরফে দাবি করা হয়েছিল, ডিজেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় বাস চালানো যাচ্ছে না। কেন্দ্রীয় সরকার পদক্ষেপ করে দাম কমিয়েছে। তাদের পাশে দাঁড়িয়ে বহু রাজ্য সরকার জ্বালানির ওপর আংশিক কর প্রত্যাহার করেছে। ব্যতিক্রম শুধু পশ্চিমবঙ্গ।’

সব শেষে শমীকবাবুর সংযোজন, ‘রাজ্য সরকারের অনুপ্রেরণায় ও নবান্ন স্পনসরড তৃতীয় ঢেউ পশ্চিমবঙ্গে চলছে’।

 

বন্ধ করুন