বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > ফাঁকিবাজদের পোয়াবারো, সরকারি অফিসে উঠে গেল লাল কালি
গত সোমবার পাবলিক সার্ভিস কমিশনের দফতরে কর্মীরা।  (PTI)
গত সোমবার পাবলিক সার্ভিস কমিশনের দফতরে কর্মীরা।  (PTI)

ফাঁকিবাজদের পোয়াবারো, সরকারি অফিসে উঠে গেল লাল কালি

  • গত সোমবার থেকে সরকারি অফিসে নতুন নিয়মে কাজ শুরু হয়েছে। শুরু হয়েছে শিফটিং ডিউটি। কিন্তু ট্রেন না চলায় অনেকেরই অফিসে পৌঁছতে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে।

সরকারি কর্মচারীদের জন্য সুখবর। অফিসে ঢুকতে দেরি হলেও আর পড়বে না লাল কালি। শুক্রবার এক টুইটে একথা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরিবহনের সমস্যা কাটিয়ে সরকারি কর্মচারীরা যাতে নিরাপদে অফিসে পৌঁছতে পারেন সেজন্য মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণা বলে জানানো হয়েছে নবান্নের তরফে। 

গত সোমবার অফিস-কাছারি খোলার পর থেকেই পথ নিরাপত্তা ও সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংকে সব থেকে বেশি গুরুত্ব দিতে অনুরোধ করেন মমতা। বলেন, প্রাণের দাম অনেক। তাই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পথে বেরোবেন না। তবে শুধু মুখে বলাই নয়, সরকারি কর্মচারীদের জীবন নিয়ে যে সরকার সত্যিই ভাবিত তা এদিন বোঝালেন মমতা। 

গত সোমবার থেকে সরকারি অফিসে নতুন নিয়মে কাজ শুরু হয়েছে। শুরু হয়েছে শিফটিং ডিউটি। কিন্তু ট্রেন না চলায় অনেকেরই অফিসে পৌঁছতে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে। তাঁদের জন্য লালকালিতে ছাড় দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন মমতা। 

সঙ্গে বেসরকারি সংস্থাগুলিকে যতটা সম্ভব ওয়ার্ক ফ্রম হোম দিয়ে কাজ মেটাতে অনুরোধ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। খুব দরকার ছাড়া ভিড়ে যেতে নিষেধ করেছেন তিনি। সব সময় মাস্ক ব্যবহার করে সুস্থ থাকার পরামর্শও দিয়েছেন মমতা। 

লাল কালি উঠে যাওয়ায় সরকারি কর্মচারীরা খুশি হলেও এর অপব্যবহারের আশঙ্কাও থেকে যাচ্ছে। কোন কর্মী সত্যিই পথে সমস্যায় পড়েছিলেন, আর কে ইচ্ছা করে দেরিতে অফিসে ঢুকছেন তা বোঝার কোনও উপায় নেই। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সে সব ভাবার মতো অবস্থায় নেই সরকার। ফাঁকিবাজদের পোয়াবারো সত্বেও বাকিদের সুরক্ষা দিতে হবে তাদের। 

 

বন্ধ করুন