বাংলা নিউজ > কর্মখালি > Primary TET 2014 Scam: ২০১৪ সালের TET উত্তীর্ণ হয়ে শিক্ষকতা করছেন? এই ১০ নথি গুছিয়ে রাখতেই হবে

Primary TET 2014 Scam: ২০১৪ সালের TET উত্তীর্ণ হয়ে শিক্ষকতা করছেন? এই ১০ নথি গুছিয়ে রাখতেই হবে

২০১৪ সালের TET উত্তীর্ণ হয়ে শিক্ষকতা করছেন তো। ১০ নথি গুছিয়ে রাখতেই হবে. (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

Primary TET 2014 Documents: আপনি কি ২০১৪ সালের প্রাথমিক টেট উত্তীর্ণ হয়ে চাকরি করছেন? তাহলে এই ১০ টি নথি অবশ্যই নিজের কাছে রেখে দিন। কী কী নথি রাখতে হবে, তা দেখে নিন।

২০১৪ সালের টেট দুর্নীতি নিয়ে রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়েছে রাজ্য সরকার। সেই পরিস্থিতিতে ওই বছর টেট উত্তীর্ণ হয়ে যাঁরা স্কুলে শিক্ষকতা করছেন, তাঁদের থেকে যাবতীয় নথি চেয়েছে রাজ্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। কী কী নথি রেখে দিতে হবে, তা দেখে নিন -

১) অ্যাপয়েন্টমেন্ট লেটারের প্রতিলিপি। 

২) জয়েনিং রিপোর্টের প্রতিলিপি। 

৩) ২০১৪ সালের টেটের অ্যাডমিট কার্ডের প্রতিলিপি। 

৪) ২০১৪ সালের টেট উত্তীর্ণ হওয়ার নথির প্রতিলিপি। 

৫) দশম, দ্বাদশ শ্রেণি-সহ যাবতীয় শিক্ষাগত যোগ্যতার মার্কশিট, সার্টিফিকেট এবং অ্যাডমিট কার্ডের প্রতিলিপি। 

৬) প্রাথমিক শিক্ষক প্রশিক্ষণের অ্যাডমিট কার্ড, মার্কশিট ও সার্টিফিকেট বা বি.এডের অ্যাডমিট কার্ড, মার্কশিট এবং সার্টিফিকেটের প্রতিলিপি। 

৭) জাতিগত শংসাপত্রের প্রতিলিপি।

৮) পার্শ্ব-শিক্ষক হিসেবে কাজের চিঠির প্রতিলপি (যদি কেউ করে থাকেন)। 

৯) বিশেষভাবে সক্ষম, এক্স-সার্ভিসম্যানের মতো সংরক্ষণের আওতায় থাকলে সেই সংক্রান্ত প্রতিলিপি।

১০) ২০১৪ সালের টেট সংক্রান্ত যে কোনও নথি।

২০১৪ সালের টেট দুর্নীতি মামলা

২০১৪ সালের নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। পরের বছর ১১ অক্টোবর টেট হয়েছিল। ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে প্রথম মেধাতালিকা প্রকাশ করা হয়েছিল। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে প্রকাশিত হয়েছিল দ্বিতীয় মেধাতালিকা। সেই দ্বিতীয় মেধাতালিকায় অনিয়মের অভিযোগ তুলে মামলা দায়ের করেছিলেন রমেশ আলি। 

আরও দেখুন: Manik Bhattacharya Primary TET: হাইকোর্টে চাপে মানিক, কেন TET মামলায় প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতির পদ খোয়ালেন?

তিনি দাবি করেন, দুর্নীতির জন্য দ্বিতীয় তালিকা প্রকাশ করা হয়েছিল। সেই মামলায় সম্প্রতি সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। ইতিমধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তৎকালীন সভাপতি মানিক এবং তৎকালীন সচিব রত্না চক্রবর্তী বাগচিকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিবিআই।

তারইমধ্যে ২৬৯ জনকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করেছে হাইকোর্ট। চলতি মাসের শুরুতে পর্ষদের আইনজীবী জানান, ২০১৪ সালের প্রাথমিক টেটের ১৬৯ জনকে অতিরিক্ত এক নম্বর দিয়ে পাশ করানো হয়েছিল। সেই নম্বরের ভিত্তিতে তাঁরা চাকরি পেয়েছিলেন। তারপরই তাঁদের বরখাস্ত করার নির্দেশ দেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। সেইসঙ্গে বিস্তারিত রিপোর্ট পেশের নির্দেশ দেন। হাইকোর্টে সেই রিপোর্ট জমা পড়েছে। 

সেই রিপোর্টে পর্ষদের তরফে দাবি করা হয়েছে, ২৬৯ নয়, মোট ২৭৩ জনকে অতিরিক্ত এক নম্বর দেওয়া হয়েছিল। প্রাথমিক পর্ষদের তরফে দাবি করা হয়েছিল, কেন নম্বর বাড়ানো হয়েছিল? পর্ষদের তরফে দাবি করা হয়েছিল, একটি প্রশ্নপত্রে ভুল ছিল। সেজন্য এক নম্বর বাড়ানো হয়েছিল। ভুল প্রশ্ন নিয়ে মোট ২,৭৮৭ টি আবেদন জমা পড়েছিল। তাঁদের মধ্যে ২৭৩ জন প্রশিক্ষিত ছিলেন। তাই তাঁদের বাড়তি এক নম্বর দেওয়া হয়েছিল। মোট ১৮ লাখ প্রার্থী অনুত্তীর্ণ হলেও তাঁদের খুঁজে বের করা সম্ভব ছিল না। তাই যাঁরা আবেদন করেছিলেন, তাঁদেরই বাড়তি নম্বর দেওয়া হয়েছিল।সেই পরিস্থিতিতে সোমবার প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতির পদ থেকে মানিককে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। জাল নথি পেশের দায়ে তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়।

কর্মখালি খবর

Latest News

আগামিকাল চৈত্র সংক্রান্তি কেমন কাটবে? মেষ থেকে মীনের ১৩ এপ্রিলের রাশিফল রইল হাওয়ালার মাধ্যমে ৩০০ কোটি টাকা দুবাইয়ে!ইডির চার্জশিটে অভিযোগ বিশ্বজিতের বিরুদ্ধে ব্যবহার করত হিন্দু নাম, বাংলায় ডেরা নেওয়া জঙ্গিদের মাথার দাম কত ছিল? মাথাপিছু ১.২ লাখ, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ঝড়ে দুর্গতদের টাকা দেবেন মমতা, ঘোষণা অভিষেকের ভিডিয়ো: রোহিত ব্যাট করতে নামতেই খোঁচা দিলেন কোহলি! জানেন জবাবে কী করলেন হিটম্যান ‘আমার বউ রান্নাটা ঠিক…’, পিয়াকে নিয়ে বেফাঁস পরম, বিয়ের পর জীবনে কী বদল এল নায়কের এত্ত জোরে নাক ডাকছেন! শ্যুটিংয়ের ফাঁকে ঘুমিয়ে কাদা 'আলোর কোলে'র 'জামাই দাদা' ‘বাবা-মা চাননি মেয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুক, জয়েন্ট দিক!’ স্বীকৃতির কথায় অবাক রচনা কেস খেতে হলে খাব, হাজার বার খাব! সামনে ভোট, ঝড়ে দুর্গতদের পাশে থাকতে মরিয়া মমতা ১০% বা তার বেশি ইনক্রিমেন্ট দিচ্ছে TCS! কারা কারা পাচ্ছেন? তবে কমল কর্মীর সংখ্যা

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.