বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > পারা (পশ্চিমবঙ্গ) বিধানসভার ভোটের ফলাফল: জিতলেন বিজেপির নাদিয়াচন্দ বাউড়ি

এই আসনে বিজেপি প্রার্থী নাদিয়াচন্দ বাউড়ি ৪৫ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়ী। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তৃণমূল কংগ্রেসের উমাপদ বাউড়ি পেয়েছেন প্রায় ৪৩ শতাংশ ভোট।

পারা বিধানসভা কেন্দ্রে এবারে তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন উমাপদ বাউড়ি। বিজেপির তরফ থেকে দাঁড়াচ্ছেন নাদিয়াচন্দ বাউড়ি। অন্যদিকে, বাম-কংগ্রেস-ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের (আইএসএফ) তরফে এই কেন্দ্রে দাঁড়াচ্ছেন সিপিএমের স্বপন বাউড়ি।

১৯৫৬ সালে পূর্বতন বিহার রাজ্যের মানভূম জেলার সদর মহকুমা পুরুলিয়া জেলা নামে বাংলায় অন্তর্ভুক্ত হয়। সেই থেকে এই জেলা এই রাজ্যের অঙ্গ। জেলার পূর্ব সীমান্তে পূর্ব বর্ধমান জেলা, বাঁকুড়া ও ঝাড়গ্রাম জেলা এবং অপর তিনদিকে ঝাড়খণ্ড রাজ্য। পারা এই জেলার একটি বিধানসভা কেন্দ্র। একটি তফসিলি জাতি সংরক্ষিত আসন। আগামী ২৭ মার্চ প্রথম দফায় পারায় ভোট হবে। পারা বিধানসভা কেন্দ্রটি পুরুলিয়া লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত। ২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো জয়ী হয়েছিলেন৷ দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মৃগাঙ্ক মাহাতো৷

২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রে জয়ী হয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী সমীরকুমার জানা৷ তাঁর প্রাপ্ত ভোট ১০৭,৫৯৫টি৷ দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন কংগ্রেসের ফণিভূষণ গিরি৷ তাঁর প্রাপ্ত ভোট ৯৩,৮০২৷ তৃতীয় স্থানে ছিলেন শ্রীধরচন্দ্র বাগারি৷ তাঁর প্রাপ্ত ভোট ৬,৯৪২৷

তার আগে ২০০৯ সালে জেলা পরিষদের (জেলা কাউন্সিল) নির্বাচনের পর বিধায়ক বিলাসীবালা সহিস পদত্যাগ করেছিলেন। ২০০৯ সালের উপনির্বাচনে পারা বিধানসভা কেন্দ্র থেকে জেএমএমে—র চরণ বাউড়িকে পরাজিত করেছিলেন সিপিআইএমের মিনু বাউড়ি।

১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০১, ও ২০০৬ সালে সিপিআইএমের বিলাসীবালা সহিস পারা বিধানসভা কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়েছিলেন। ২০০৬ সালে তৃণমূলের সীমা বাউড়ি, ২০০১ সালে তৃণমূল কংগ্রেসের মীরা বাউড়ি, ১৯৯৬ সালে জেএমএমের গোবর্ধন বাগদি ও ১৯৯১ সালে কংগ্রেসের দুর্গদাস বাউড়িকে পরাজিত করেছিলেন সহিস। ১৯৮৭ সালে এই আসন থেকে সিপিআইএমের গোবিন্দ বাউড়ি পরাজিত করেছিলেন কংগ্রেসের কাশীনাথ বাউড়িকে। আবার ১৯৭৭ ও ১৯৮২ সালে তিনি কংগ্রেসের শরৎ দাসকে এই আসন থেকেই পরাজিত করেছিলেন।

১৯৭১—৭২ সালে কংগ্রেসের শরৎ দাস জয়ী হয়েছিলেন। ১৯৬২ সালে কংগ্রেসের নেপাল বাউড়ি এই আসনে জয়ী হয়েছিলেন।১৯৬৭ সালে কংগ্রেসের এস.বাউড়ি জয়ী হয়েছিলেন।১৯৬৯ সালে পারা আসন থেকেই কংগ্রেসের তিনকড়ি বাউড়ি জয়ী হয়েছিলেন। অবশ্য ১৯৫৭ সালে পারা বিধানসভা কেন্দ্রে আসন বিদ্যমান ছিল না। দেশের প্রথম নির্বাচনে পারা তথা চাস আসনটি ছিল। পুরুলিয়া জেলার এই অংশটি পূর্বে বিহারের অংশ ছিল। কংগ্রেসের শরৎ মোচি ও নির্দলের দেও শংকর প্রসাদ সিং উভয়ই যৌথভাবে এই দু’টি কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়েছিলেন।

বন্ধ করুন