বাড়ি > বায়োস্কোপ > শ্রীলেখা মিত্রের বিস্ফোরক ভিডিয়ো লাইভ, আঙুল তুললেন বুম্বাদা,ঋতুপর্ণার দিকে!
ছবির শুটিংয়ে শ্রীলেখা মিত্র। ছবি ফেসবুক।
ছবির শুটিংয়ে শ্রীলেখা মিত্র। ছবি ফেসবুক।

শ্রীলেখা মিত্রের বিস্ফোরক ভিডিয়ো লাইভ, আঙুল তুললেন বুম্বাদা,ঋতুপর্ণার দিকে!

শ্রীলেখা মিত্র ইউটিউব লাইভে ক্ষোভ উগরে দিলেন টলিউডের একেবারে শীর্ষে থাকা তারকা,পরিচালক এবং প্রযোজকদের প্রতি। তিনি সোজাসুজি আঙুল তুললেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের দিকে। 

এবার বিস্ফোরক অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। গত বৃহস্পতিবার নিজের ইউটিউব চ্যানেলের লাইভে তোপ দাগেন অভিনেত্রী। তিনি বলেন, এই বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি তাঁকে তাঁর যোগ্য সুযোগ দেয় নি। বারবার স্বজন পোষণের শিকার হয়েছেন তিনি।  এমনই দাবি করেছেন অভিনেত্রী। প্রায় এক ঘন্টার ভিডিয়োতে উঠে এসেছে তাঁর নিজের  চোখ দিয়ে দেখা , এবং তাঁর সঙ্গে ঘটে যাওয়া অসহায় কিছু ঘটানার কথা। ভিডিয়োতে তিনি বলেছেন,  টলিউডের  একজন বলিষ্ঠ অভিনেত্রী হওয়া সত্ত্বেও প্রথম থেকেই তাঁকে নায়কের বোনের চরিত্রে বা পার্শ্ব কোনও চরিত্রেই অভিনয় করে যেতে হয়েছে। মূল চরিত্রে তাঁকে সুযোগ দেওয়া হয়নি। কারণ এই ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁর কোনও গড ফাদার নেই! তাঁর কোনও ফিল্মি ব্যাকগ্রাউন্ডও ছিল না। কেউ তাঁকে সুযোগ করে দেয় নি। নিজের ট্যালেন্ট, চেষ্টা এবং অধ্যবসয় সম্বল করে এই ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের জায়গা পাকা করার লড়াই চালিয়েছেন দিনের পর দিন। 

এই মুহূর্তে গোটা দেশ সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার ঘটনায় স্তম্ভিত! বেশিরভাগ মানুষ মনে করছেন সুশান্ত বলিউডের স্বজন পোষণের শিকার হয়েছিলেন। একজন সফল  এবং অসাধারণ অভিনেতা হওয়া সত্ত্বেও বাদ পড়ছিলেন কাজ থেকে, অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল তাঁর ফিল্মি কেরিয়ার। সেই হতাশা থেকেই আত্মহত্যা! এমনটাই মনে করছেন সুশান্তের কাছের মানুষ এবং ভক্তদের একাংশ। শ্রীলেখা নিজের কেরিয়ারের লড়াইয়ের প্রসঙ্গে সুশান্তের অবসাদের প্রসঙ্গ টেনে আনেন। এই মর্মান্তিক মৃত্যু তাঁকে  নাড়া দিয়েছে অন্তর থেকে।  একটা সময় সুশান্তের মতো তিনিও ডিপ্রেশনে চলে গিয়েছিলেন। তবে তিনি আত্মহত্যা প্রবণ নন, তাই সেই অবসাদ থেকে মুক্ত হয়ে লড়াই চালিয়ে এগিয়ে চলেছেন আজও। সেই কথাই জানিয়েছেন তাঁর নিজস্ব চ্যানেলে। 

শুক্রবার এক বেসরকারি নিউজ চ্যানেলে শ্রীলেখা তাঁর ইউটিউব ভিডিয়ো সম্বন্ধে  বক্তব্য রাখেন। প্রসেনজিত, ঋতুপর্ণার প্রেম ঘটিত সম্পর্কের কারণেই নায়িকার চরিত্রে কাজ পান নি বলে তিনি জানান। তাঁর কথা অনুযায়ী,  একমাত্র অশোক ধানুকা প্রযোজিত ছবি ‘অন্নদাতা’ ছবিতে তিনি বুম্বাদার বিপরীতে নায়িকা হওয়ার সুযোগ পেয়েছিলন। ঋতুপর্ণা কোনও কারণে সময় দিতে পারেন নি বলেই তাঁকে কাস্টিং করা হয়। অন্নদাতা- সফল ছবি হলেও তারপর থেকে আর কোনও ছবিতে তাঁকে বুম্বাদার সঙ্গে দেখা যায়নি, কারণ ততদিনে অর্পিতার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে আবদ্ধ হয়ে পড়েছিলেন নায়ক। অতএব তিনি বাদ পড়বেন সেটাই স্বাভাবিক! প্রসেনজিত চট্টোপাধ্যায়ের কারণেই প্রযোজক শ্রীলেখাকে এড়িয়ে যান, এবং যাতে তাঁর নায়িকা হিসেবে শ্রীলেখাকে না নেওয়া হয় সেই ব্যাপারে প্রযোজকের ওপর চাপ দিতে থাকেন বুম্বা দা। 

ওই একই অনুষ্ঠানে প্রযোজক অশোক ধানুকা বলেন, এখানে স্বজন পোষণের কোনও বিষয় নেই। প্রসেনজিত চট্টোপাধয়ায় আমায় কোনও চাপ দেন নি। যা মার্কেটে চলে তাই নিয়েই আমরা ছবি বানাই। কারণ আমাদের কাছে হিট ছবিটাই আসল কথা। এখানে কারও অলাদা করে চাপ দেওয়ার কোনও ব্যাপার নেই। প্রসেনজিত-ঋতুপর্ণা জুটি তখন সুপার হিট। এদিকে শ্রীলেখা তখন সিরিয়ালে অভিনয় করছে, ওঁর সেই গ্রহণযোগ্যতা ছিল না।  সেই সময় ঋতু আমেরিকায় ছিলেন। ডেট নিয়ে সমস্যা ছিল। তাই শ্রীলেখাকে কাস্টিং করা হয়েছিল।

বন্ধ করুন