বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > সোনালিকে সাধ খাওয়ালেন ভাস্বর, সারা দুপুর চলল জমিয়ে আড্ডা
ভাস্বর ও সোনালি (ছবি-সংগৃহিত)
ভাস্বর ও সোনালি (ছবি-সংগৃহিত)

সোনালিকে সাধ খাওয়ালেন ভাস্বর, সারা দুপুর চলল জমিয়ে আড্ডা

ভাস্বর বাড়িতে আসায় খুশি সোনালিও। আপাতত চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে বাড়িতেই বিশ্রামে রয়েছেন অভিনেত্রী।

জুনেই সন্তানের জন্ম দিতে চলেছেন অভিনেত্রী সোনালী চৌধুরী। আর তাই হবু মাকে সাধ খাওয়াতে হাজির হলেন সহকর্মী-বন্ধু ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়। মঙ্গলবার বলরাম মল্লিকের সাজানো থালা হাতে সোনালির বাড়িতে পৌঁছে যান ভাস্বর। মিষ্টি খেতে ভালোবাসেন সোনালি। তাই থালায় সাজিয়ে পুরনো বন্ধুর জন্য মিষ্টি আর নোনতা খাবার নিয়ে আসেন তিনি। 

টলিপাড়ায় এরকম বন্ধুত্বের নজির প্রায়ই চোখে পড়ে। দীর্ঘক্ষণ শ্যুটিং করতে করতে কখন যে তাঁরা ঘনিষ্ঠ বন্ধু হয়ে যান, নিজেরাই জানতে পারেন না। ১৯৯৮ সালে ক্যামেরার সামনে প্রথম মুখোমুখি হন সোনালি-ভাস্বর। এরপর সময় চাকা ঘুরলেও বন্ধুত্ব নষ্ট হয়নি। বরং তা, আরও মজবুত হয়েছে। 

হবু মাকে সাধ খাওয়ানোর রেওয়াজ বহু দিনের। তবে, লিঙ্গ বৈষম্য ভেদ করে ভাস্বরের এই পদক্ষেপ সত্যিই প্রশংসাযোগ্য। ভাস্বরের কথায়, অনেকদিন ধরেই ওর সঙ্গে দেখা করতে আসের কথা ভাবছিলাম। কিন্তু কাজের চাপে সময় করে উঠতে পারছিলাম না। অবশেষে আমার শখ মিটল।

ভাস্বর বাড়িতে আসায় খুশি সোনালিও। আপাতত চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে বাড়িতেই বিশ্রামে রয়েছেন। করোনার কারণে প্রয়োজন ছাড়া খুব একটা বাড়ি বাইরেও পা রাখেন না। তাই পুরনো বন্ধুর আগমনে বাড়িতেই চলল চুটিয়ে আড্ডা। রাজনীতি থেকে ইন্ডাস্ট্রি— কিচ্ছু বাদ পড়ল না সেই গুলতানিতে।

সোনালির বাড়ি থেকে অবশ্য খালি মুখে ফেরেননি ভাস্বরও। অভিনেত্রীর মায়ের হাতের লুচি, সাদা আলুর তরকারি আর মিষ্টি দিয়ে পেটপুজো সেরেছেন। 

২০২০-র দুর্গা পুজার সময়েই সুখবর পান সোনালি। তখন তিনি ধারাবাহিক ‘কনে বউ’ শ্যুটিংয়ে ব্যস্ত। মাতৃত্বকালীন ছুটি নেওয়ার আগে পর্যন্ত কাজ করেছেন। এখন রয়েছেন মায়ের কাছে। সঙ্গে খেলোয়াড় স্বামী রজত ঘোষ দস্তিদারেরও ভালোবাসা মেশানো কড়া নজরও রয়েছে হবু মায়ের ওপর। 

বন্ধ করুন