বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > প্রায় দু'মাস বিদেশে! ফিরে মায়ের কাছে কী খেতে চাইলেন অঙ্কুশ
বাড়ি ফিরলেন অঙ্কুশ। 

প্রায় দু'মাস বিদেশে! ফিরে মায়ের কাছে কী খেতে চাইলেন অঙ্কুশ

  • অতীতেও একাধিক বার বিদেশে গিয়ে থেকেছেন, কাজ করেছেন। তবে এই প্রথম এতটা দীর্ঘ সময় বাড়ি থেকে দূরে।

অবশেষে তিনি ফিরলেন। দু'মাস লন্ডনে কাটানোর পর মঙ্গলবার দেশে ফিরলেন অভিনেতা অঙ্কুশ হাজরা। এসকে মুভিজের প্রযোজনায় সেখানে তিনটি ছবির শ্যুট সেরেছেন তিনি। ওগো বিদেশিনী, স্যান্টা, চন্দ্রবিন্দু- এগুলির মধ্যে শেষ দু'টিতে প্রেমিকা ঐন্দ্রিলা সেনের সঙ্গে দেখা যাবে তাঁকে।

অতীতেও একাধিক বার বিদেশে গিয়ে থেকেছেন, কাজ করেছেন। তবে এই প্রথম এতটা দীর্ঘ সময় বাড়ি থেকে দূরে। অভিজ্ঞতা কেমন? হিন্দুস্তান টাইমস বাংলাকে অভিনেতা বললেন, 'বিদেশে গিয়ে ৩০-৪৫ কাজ আগেও করেছি। তবে এত দিন থাকা হয়নি। এক টানা তিনটি ছবির কাজ করলা। দু'টি ছবির মাঝে দু'দিনের বিরতি পেয়েছি। তখন নতুন চরিত্রের জন্য নিজেকে তৈরি করেছি। নানা ধরণের প্রস্তুতি নিয়েছি।'

লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের হাঁকডাকের মাঝেও প্রেমিকাকে নিয়ে বিদেশের ইতিউতি ঘুরে বেড়িয়েছেন অঙ্কুশ। লেন্সবন্দি সেই মুহূর্তগুলি ভাগ করে নিয়েছেন অনুরাগীদের সঙ্গে। এ সবই তো হল । অভিনেতার কথায়, 'আমরা কাজ করেছি। সময় পেলে আনন্দও করেছি। ওখানে দু'টি ভারতীয় পরিবারের সঙ্গে দেখা হয়েছিল। ওঁরা আমাদের বাড়ির খাবার মিস করতে দেননি। নানা পদ রান্না করে খাইয়েছেন।'

তবে দীর্ঘ দিন পর বাড়ি ফিরেই মায়ের হাতের চিকেন কষা আর ফ্রুট কাস্টার্ড খাওয়ার আবদার করেন অভিনেতা। খানিক হেসে তিনি বলেন, 'মায়ের হাতের ওই দুটো পদ আমার দারুন লাগে। বাড়ি ফিরে তাই ওগুলোই খেয়েছি।'

অঙ্কুশ জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে লন্ডনে এসকে মুভিজের একসঙ্গে আটটি ছবির শ্যুট হয়েছে। অভিনেতা বলেন, 'একটা প্রযোজনা সংস্থা যে বাংলা ছবির জন্য এতটা ব্যয় করছে, সেটা দেখে ভাল লাগছে। বিদেশে এতগুলো ছবি শ্যুট করা তো মুখের কথা নয়। বোঝা যাচ্ছে, আমাদের ইন্ডাস্ট্রি এগোচ্ছে। আমি খুশি।'

বন্ধ করুন